তার মানে কি আওয়ামী লীগে জনগণের সমর্থন নেই : রিজভী
তার মানে কি আওয়ামী লীগে জনগণের সমর্থন নেই : রিজভী

তার মানে কি আওয়ামী লীগে জনগণের সমর্থন নেই : রিজভী

অনলাইন ডেস্ক

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, বেহেশতে থেকে তো আর মিথ্যা কথা বলা যায় না, তাই সত্যটাই বলে দিয়েছেন অবৈধ পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

‘ভারতে গিয়ে বলেছি, শেখ হাসিনাকে টিকিয়ে রাখতে হবে’ গতকাল পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দেওয়া এই বক্তব্যের কঠোর সমালোচনা করে রিজভী বলেন, কথাটা আজকে দেশের প্রত্যেকটি গণমাধ্যমে এসেছে। তার মানে কি জনগণের সমর্থন নেই। শেখ হাসিনার পায়ের নিচে মাটি নেই, সেই কথাই সত্য প্রমাণিত হয়েছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী অনেক সময় নিজের অজান্তেই অনেক সত্য কথা বলে বসেন। এই সরকার সম্পর্কে বিএনপি ও দেশের মানুষের যে ধারণা সেটাই মন্ত্রীরা প্রমাণ করছেন। বেহেশতে থেকে তো আর মিথ্যা কথা বলা যায় না, তাই সত্যটাই বলে দিচ্ছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

শুক্রবার (১৯ আগস্ট) বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজারে জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবকদলের ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ শেষে এসব কথা বলেন তিনি।

 

অ্যাডভোকেট রুহুল কবির বলেন, ‘আমাদের নেত্রী সরকারপ্রধানকে লেন্দুপ দর্জি’র সঙ্গে তুলনা করেছিলেন। এটা কি প্রমাণিত হয় না, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের মাধ্যমে বুঝা যায়; খালেদা জিয়ার বক্তব্যই ছিল সঠিক।

বিএনপির মুখপাত্র বলেন, দেশে গুম ও খুনের রাজত্ব চলছে। এখানে মানুষের মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নেই। কিন্তু এগুলো নিয়ে সরকার কর্ণপাত করে না। কারণ জনগণের ভিত্তির ওপর তারা দাঁড়িয়ে নেই। তারা দাঁড়িয়ে থাকতে চায় অন্যের শক্তির ওপর। এরা যে দড়িটা ধরে আছে সেটা জনগণের নয়, রশিটা হচ্ছে বাইরের। আজকে সেটা প্রকাশ করছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

‘আমরা জাতীয়তাবাদী শক্তির সন্তান। জাতীয়তাবাদী শক্তির প্রতীক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান, বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের নেতৃত্বে আমরা গড়ে উঠেছি। আমরা জনগণকে বিশ্বাস করি, জনগণকে ক্ষমতার উৎস মনে করি। আমাদের দড়ি অন্য কোথাও নেই, সেই কথা আমাদের দলের প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানই বলে গেছেন’ বলেন বিএনপির সিনিয়র এ নেতা।

সরকারের কঠোর সমালোচনা করে রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘সরকারে গঠনের প্রশ্নে আমরা সবসময় জনগণের ওপর ভরসা রেখেই কথা বলি। সেজন্য স্বচ্ছ, ইম্প্রেসিভ এবং সবার অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনই আমরা চাই। আমরা কারও কাছে ধর্না দেই না, যে আমাদেরকে ক্ষমতায় বসাতে হবে। বর্তমান সরকার সব কিছু হারিয়েছে, তারা জনগণকে ত্যায্য করেছে বলেই অন্যের কাছে গিয়ে নিজেদের টিকিয়ে রাখার কথা বলছে। দেশের মানুষের কাছে যাওয়ার মুখ তাদের নেই, কারণ তারা ভোটকে কবর দিয়েছে। তারা গণতন্ত্রকে কবর দিয়েছে, মানুষের মতপ্রকাশের স্বাধীনতাকে কবর দিয়েছে, তাই জনগণের কাছে যেতে পারে না। আমাদের স্বাধীনতাকে বিপন্ন করে অন্যের শক্তির ওপর ভর দিয়ে ক্ষমতায় টিকিয়ে থাকতে চায় তারা।

news24bd.tv/তৌহিদ