ঠাকুরগাঁওয়ে সন্তানের গলায় ছুরি ধরে মাকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ!
ঠাকুরগাঁওয়ে সন্তানের গলায় ছুরি ধরে মাকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ!

ঠাকুরগাঁওয়ে সন্তানের গলায় ছুরি ধরে মাকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ!

অনলাইন ডেস্ক

সাত বছরের ছেলের সামনেই এক মা সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার এ ঘটনায় পাঁচজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

অভিযুক্তরা হলেন- হরিপুর উপজেলার বকুয়া ইউনিয়নের চাপধা হাটপুকুর গ্রামের সলেমান আলীর ছেলে ফজলুর রহমান (২০), চাপধা পিপলা গ্রামের করিমুল ইসলামের ছেলে রিসাত (১৯) ও চাপধা গুচ্ছগ্রামের শাহজাহান আলীর ছেলে আকাশ (১৯)। তদন্তের স্বার্থে বাকি দুজনের নাম জানায়নি পুলিশ।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার একটি গ্রামের ওই নারী দুই সন্তানের জননী। গতকাল শুক্রবার (১৯ আগস্ট) বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে এক আত্মীয়র বাড়ি থেকে রানীশংকৈল হয়ে বোনের বাড়িতে যাওয়ার পথে উপজেলার কামারপুকুর বাসস্ট্যান্ড হতে সংঘবদ্ধ একটি চক্র অটোচালকের যোগসাজশে ওই নারীকে কৌশলে অপহরণ করে তুলে নিয়ে যায়। পরে বকুয়া ইউনিয়নের চাপধা বাজারের পাশে এক ব্যক্তির আমবাগানের ভেতরে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এ সময় তার সাথে থাকা সাত বছরের ছেলের গলায় ছুরি ধরে জিম্মি করে রাখে দুর্বৃত্তরা।

পরে রাত সাড়ে ১২টার দিকে ধর্ষকরা ওই নারীকে রাস্তার পাশে ফেলে পালিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় লোকজন ফজলুর রহমানকে আটক করে ৯৯৯-এ ফোন দেয়। তাৎক্ষণিক পুলিশ এসে ওই নারীকে উদ্ধার করে।

আটক ফজলুর রহমান ও ভিকটিমের ভাষ্যমতে, পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে আরো দুই অভিযুক্ত রিসাত ও আকাশকে আটক করে। ভুক্তভোগী নারী হরিপুর থানায় গিয়ে মামলা করেছেন বলে জানায় পুলিশ।

পাঁচজন আসামির মধ্যে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা হরিপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আনোয়ার হোসেন।

news24bd.tv/তৌহিদ