বিস্ফোরণে নিহত ‘পুতিনের মস্তিষ্ক’ ডুগিনের মেয়ে
বিস্ফোরণে নিহত ‘পুতিনের মস্তিষ্ক’ ডুগিনের মেয়ে

সংগৃহীত ছবি

বিস্ফোরণে নিহত ‘পুতিনের মস্তিষ্ক’ ডুগিনের মেয়ে

অনলাইন ডেস্ক

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের ঘনিষ্ঠ মিত্র হিসেবে পরিচিত দার্শনিক আলেকজান্ডার ডুগিন। এই দার্শনিককে ‘পুতিনের মস্তিষ্ক’ও বলা হয়। মস্কোর নিকটে এক বোমা হামলায় ডুগিনের মেয়ে নিহত হয়েছেন।

ধারণা করা হচ্ছে, পুতিনের এই ঘনিষ্ঠ মিত্রকেই হত্যার জন্য এ হামলা করা হয়েছে।

রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমের তথ্য মতে, ডারিয়া ডুগিনা বাড়ি যাওয়ার সময় তার গাড়িটি বিস্ফোরিত হয়। এতেই মারা যান তিনি।

রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানায়, শনিবার একটি অনুষ্ঠান শেষে ডুগিন ও তার মেয়ে একই গাড়িতে করে বাড়ি ফিরছিলেন। তবে হামলার কয়েক মিনিট আগে গাড়ি থেকে নেমে পড়েন ডুগিন।

পরে অন্য একটি যানে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। এমন সময়েই ডুগিনাকে বহনকৃত গাড়িটি বিস্ফোরিত হয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টেলিগ্রামে পোস্ট করা এক ভিডিওতে দেখা যায়, বিস্ফোরণের পর ডুগিন হতবাক হয়ে গাড়িটির দিকে তাকিয়ে রয়েছেন। এমন সময় জরুরী পরিষেবার একটি গাড়ি সেখানে পৌঁছায়।

এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেনি রুশ কর্তৃপক্ষ।

সরকারি কোনো কর্মকর্তা না হলেও ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসনকে সোচ্চারভাবে সমর্থন করছিলেন নিহত ডারিয়া ডুগিনা। চলতি বছরের শুরুর দিকে সাংবাদিকতা করা ডুগিনার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য কর্তৃপক্ষ।

গত মে মাসে এক সাক্ষাতকারে ডুরিনা ইউক্রেন আগ্রাসনকে ‘সভ্যতার সংঘর্ষ’ বলে আখ্যায়িত করেন। ওই সময় বাবা ডুগিন ও তার ওপর পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞাকে গর্ব হিসেবে সম্বোধন করেন ডুরিনা।

news24bd.tv/মামুন