পড়ালেখার ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ‌'শিখো'তে যুক্ত হলেন চঞ্চল
পড়ালেখার ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ‌'শিখো'তে যুক্ত হলেন চঞ্চল

সংগৃহীত ছবি

পড়ালেখার ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ‌'শিখো'তে যুক্ত হলেন চঞ্চল

অনলাইন ডেস্ক

দেশের সর্বাধুনিক শিক্ষা প্রযুক্তি (এডটেক) প্রতিষ্ঠান 'শিখো'র নতুন ক্যাম্পেইন ‘শিখবো, জিতবো’ এর প্রচারণায় যুক্ত হলেন জনপ্রিয় অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী। ২০১৯ সালে যাত্রা শুরু করার পর থেকেই শিখো, বাংলাদেশের জাতীয় পাঠ্যক্রমকে সহজ ও আনন্দদায়ক করে মানসম্মত শিক্ষাকে সবার জন্য সহজলভ্য ও সাশ্রয়ী করে তোলার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি।

শিখোতে রয়েছে বাংলাদেশের জাতীয় পাঠ্যক্রম অন্তর্ভুক্ত এসএসসি, এইচএসসি, বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার সিলেবাসসহ বিভিন্ন একাডেমিক ও প্রফেশনাল স্কিল ডেভেলপমেন্টের কোর্স। এক দশকের আন্তর্জাতিক অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে জাতীয় পাঠ্যক্রমকে একবিংশ শতকের উপযোগী করে তুলতে কাজ করছেন শিখো’র সহ-প্রতিষ্ঠাতা শাহীর চৌধুরী (সিইও) এবং জিশান জাকারিয়া (সিওও)।

ভিজ্যুয়াল লার্নিংয়ের জন্য অ্যানিমেটেড ভিডিও কন্টেন্টের পথিকৃৎ হিসেবে এবং বাংলাদেশের প্রথম ও একমাত্র পার্সোনালাইজড আর ডেটা-নির্ভর লার্নিং অ্যাপ চালু করেছেন তারা। যা নিয়মিত পড়াশোনাকে ‘গেমিফাই’ করার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের শেখার অভিজ্ঞতাকে করেছে আরও ইন্টারঅ্যাকটিভ এবং আকর্ষণীয়।  বর্তমানে বাংলাদেশের ৬৪টি জেলায় ৬ লক্ষ ১০ হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থী শিখো অ্যাপে প্রতিদিন গড়ে ৬৮ মিনিট করে ব্যয় করে থাকে।

এবার সেই শেখার অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে জিতে যাওয়ার অনুপ্রেরণা যোগাতে প্রতিষ্ঠানটির সাথে যুক্ত হয়েছেন চঞ্চল চৌধুরী।

 শিখো’র সিইও শাহীর চৌধুরী ‘শিখবো, জিতবো’ ক্যাম্পেইনের প্রচারণায় চঞ্চল চৌধুরীর যুক্ত হওয়া সম্পর্কে বলেন- ‘আমরা শিখো’র এই ক্যাম্পেইনের জন্য এমন একজন মানুষকে খুঁজছিলাম যিনি নিজেই একজন অনুপ্রেরণা এবং একজন বাবা, আর এজন্য খ্যাতিমান অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরী ছিলেন আমাদের প্রথম পছন্দ। তাঁকে এই ক্যাম্পেইনে যুক্ত করতে পেরে আমরা ভীষণ আনন্দিত!’

শিখো’র মাধ্যমে একজন শিক্ষার্থী খুবই সহজে এবং কম খরচে বিষয়ভিত্তিক পাঠ্যসূচির মাধ্যমে নিজস্ব গতিতে শুরু করতে পারে তার শেখার যাত্রা। অ্যাপের ভেতর অ্যানিমেটেড ভিডিও লেসনের মাধ্যমে প্রতিটি বিষয়কে সহজভাবে ব্যাখ্যা করা হয়েছে, প্রায়োগিক সূত্রসমূহের দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহার দেখানো হয়েছে, যা যেকোনো পাঠ্যক্রমকে সবার জন্য বোধগম্য করে তোলে। সমাধানসহ বিশাল প্রশ্নব্যাংকের মাধ্যমে তৈরি করা হয়েছে অনুশীলনী। আরও রয়েছে সংজ্ঞা, সূত্র, প্রমাণ এবং বিভিন্ন ‘হ্যাক’ সম্বলিত স্মার্ট নোট এবং অফলাইন কোচিং সেন্টারে শিক্ষকতার অভিজ্ঞতা সম্পন্ন শিক্ষকদের সাথে লাইভ ক্লাসে অংশগ্রহণের সুযোগ। এছাড়াও অভিজ্ঞ শিক্ষক নিয়োগ এবং তাদের আরও প্রশিক্ষিত করে তুলতে ‘টিচার্স একাডেমি’ তৈরির পরিকল্পনা করছে শিখো।

শিক্ষা প্রযুক্তির উন্নয়নে বিগত বছরের আগস্ট মাসে প্রথম সিড রাউন্ডে ১৩ লক্ষ মার্কিন ডলার বিনিয়োগ পায় শিখো। এবছরের মার্চ মাসে আরও ৪০ লক্ষ মার্কিন ডলার ফাইন্যান্সিংয়ের মাধ্যমে দ্বিতীয় সিড রাউন্ড শেষ হওয়ার ঘোষণা দেয় প্রতিষ্ঠানটি। দুইটি রাউন্ড মিলিয়ে শিখোর সর্বমোট ৫৩ লক্ষ মার্কিন ডলার (৪৫ কোটি টাকা) বৈশ্বিক বিনিয়োগ পেয়েছে - যা এখন পর্যন্ত একটি বাংলাদেশি স্টার্টআপের সর্ববৃহৎ সিড রাউন্ড।

শিখো অ্যাপটি ডাউনলোড করা যাবে গুগল প্লে স্টোর থেকে এবং আরও জানতে ভিজিট করুন: https://shikho.com/

এই রকম আরও টপিক