আর্জেন্টিনার ভাইস প্রেসিডেন্টকে প্রকাশ্যে হত্যার চেষ্টা
আর্জেন্টিনার ভাইস প্রেসিডেন্টকে প্রকাশ্যে হত্যার চেষ্টা

সংগৃহীত ছবি

আর্জেন্টিনার ভাইস প্রেসিডেন্টকে প্রকাশ্যে হত্যার চেষ্টা

অনলাইন ডেস্ক

আর্জেন্টিনার ভাইস প্রেসিডেন্ট ক্রিস্টিয়ানা ফার্নান্দেজ দে ক্রিশ্চিনারের বাড়ির বাইরে থেকে অস্ত্রসহ এক ব্রাজিলিয়ান নাগরিককে আটক করেছে দেশটির পুলিশ। তারা বলছে, ওই অস্ত্রধারী ক্রিশ্চিনারের উদ্দেশে বন্দুক তাক করে গুলি করে তাকে হত্যা করতে চেয়েছিলেন। খবর সিএনএন।

প্রতিবেদনে মার্কিন সংবাদ মাধ্যমটি জানায়, বৃহস্পতিবার (১ সেপ্টেম্বর) ক্রিশ্চিনারের সমর্থকরা তার বুয়েন্স আয়ার্স শহরের বাড়ির বাইরে একটি র‌্যালি করছিল।

সেখানে ক্রিশ্চিনা গেলে র‌্যালি থেকে একজন বন্দুক নিয়ে বের হয়ে আসেন। পরক্ষণে বন্দুকটি ভাইস প্রেসিডেন্টের মাথায় কাছে নিয়ে আসেন। ওই সময় বন্দুকধারী ট্রিগার চাপলেও গুলি বের হয়নি। এ ঘটনার কয়েক সেকেন্ডের মধ্যে ওই বন্দুকধারীকে আটক করে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী।

দেশটির নিরাপত্তা মন্ত্রণালয় বলছে, বন্দুকটি দশমিক ৩৮০ মডেলের ও এর ভেতরে গুলি ছিল।

আর্জেন্টাইন পুলিশ জানিয়েছে, এ ঘটনায় ভাইস প্রেসিডেন্টের কোনো ক্ষতি হয়নি। আটককৃত ব্যক্তি ব্রাজিলিয়ান। তার নাম ফার্নান্দো অ্যান্দ্রেস জাবাক। তার কাছে থাকা বন্দুকটি সচল ছিল ও এটি দিয়ে গুলি ছোঁড়া যেত। বন্দুকধারীকে আটক করা হয়েছে।

২০০৭ সাল থেকে ২০১৫ সাল অর্থাৎ আট বছর আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব পালন করেছেন ক্রিশ্চিনা। আর ২০১৯ সালে ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেন তিনি।

সিএনএন জানায়, ক্রিশ্চিনারের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। এর জেরে বেশ কয়েকদিন ধরে তার সমর্থকেরা বুয়েন্স আয়ার্সের বাড়ির বাইরে র‌্যালি করছে। সেই র‌্যালি থেকেই এ ঘটনা ঘটেছে।

দুর্নীতির অভিযোগে গত আগস্টের শুরুতে ক্রিশ্চিনারের ১২ বছরের সাজার দাবি করেন এক ফেডারেল প্রসিকিউটর। তবে এ নিয়ে এখনও কোনো রায় দেয়নি দেশটির আদালত। এ ঘটনার পরই দেশটির নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে জড়ায় ক্রিশ্চিনারের সমর্থকেরা। রাজধানীতে হওয়া এ সংঘর্ষে লাঠিচার্জ ও টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে নিরাপত্তা বাহিনী।

প্রেসিডেন্ট পদে থাকাকালীন অবস্থায় অস্ট্রাল কনস্ট্রাকশন নামক একটি কোম্পানিকে কাজ পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগে ২০১৬ সালে এক আর্জেন্টাইন আদালতে দোষী সাব্যস্ত হন ক্রিশ্চিনা। ওই সময় ক্রিশ্চিনাসহ আরও ১১ জনকে দুর্নীতি ও অবৈধ মেলামেশার অভিযোগে দোষী হিসেবে রায় দেন বিচারক।

news24bd.tv/মামুন