চবিতে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ৮
চবিতে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ৮

চবিতে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ৮

চবি প্রতিনিধি

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে কয়েক দফায় সংঘর্ষ হয়েছে। সংঘর্ষে ৮ ছাত্রলীগ কর্মী আহত হয়েছে। এর মধ্যে একজনের অবস্থা আশংকাজনক।

সোমবার আমানত ও শাহজালাল হলের সামনে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, বিবাদে জড়িত একটি গ্রুপ নগর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আজম নাছির উদ্দীনের অনুসারী। অন্য গ্রুপ শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী। নাছির অনুসারী গ্রুপের নাম সিক্সটি নাইন যার নেতৃত্ব দেয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপু। নওফেল অনুসারী গ্রুপটির নাম সিএফসি যার নেতৃত্ব দেয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হল রুবেল।

জানা যায়, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কলার ঝুপড়িতে সিক্সটি নাইনের কর্মী মির্জা প্রধান সফলকে মারধর করে সিএফসির কর্মীরা। পরে  দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের জিলানী হোটেলে খাবার খেতে গেলে সিএফসি গ্রুপের কর্মী রাসেল শেখকে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে আহত করে সিক্সটি নাইনের কয়েকজন। কিছুক্ষণের মধ্যেই তা উভয় গ্রুপের সংঘর্ষে রূপ নেয়। প্রায় ৩০ মিনিট ধরে উভয় পক্ষের মধ্যে ইটপাটকেল নিক্ষেপ চলে।

সংঘর্ষে আহত হয়েছেন সিএফসি গ্রুপের ২০১৪-১৫ সেশনের ইখলাস, ২০১৫-১৬ সেশনের আরিফুল ইসলাম এবং রাসেল শেখ, ২০১৮-১৯ সেশনের সামিউল হক দীপন, ২০১৯-২০ সেশনের ইমন, আজহার, ২০১৭-১৮ সেশনের আরিফ তানভীর, আজাদ ও সাগর এবং সিক্সটি নাইনের ২০১৮-১৯ সেশনের জুনায়েদ,  ২০১৯-২০ সেশনের রাকাত ও মির্জা প্রধান সফল।

সিএফসি গ্রুপের নেতা শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মির্জা খবির সাদাফ জানান, বিনা কারণে তারা আমাদের এক কর্মীর উপর দলবল নিয়ে হামলা চালায়। এসব সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে প্রশাসন সুষ্ঠু ব্যবস্থা না নিলে আমরা কঠোর কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবো।

চবি প্রক্টর রবিউল হাসান ভুঁইয়া জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়েই আমরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হই। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। ঠুনকো বিষয়ে যারা সংঘর্ষে জড়ায় তাদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

news24bd.tv/FA