শনিবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ | আপডেট ৫৯ মিনিট আগে

শিক্ষার্থীদের ঘরে ফিরে যেতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অনুরোধ

নিউজ টোয়েন্টিফোর ডেস্ক

শিক্ষার্থীদের ঘরে ফিরে যেতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অনুরোধ

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মো. আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ‘ছাত্রছাত্রীদের আহ্বান করব, তাদের সমবেদনার কথা আমরা জেনেছি। দেশব্যাপী এই মেসেজ পৌঁছেছে। আমরাও ব্যথিত। আমাদের প্রিয় আমদের ছেলেমেয়েরা বিদায় হয়েছে, সে জন্য আমরাও ব্যথিত। অনুরোধ করব, তোমাদের তোমাদের দাবি সবই মানা হয়েছে। যারা ঘাতক, যারা অন্যায় করেছে, আইন অনুযায়ী সর্বোচ্চ শাস্তি যেন তারা পায়, সে ব্যবস্থা আমরা করব।’

আজ বুধবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু উপস্থিত ছিলেন।

দোষীরা যাতে আইন অনুযায়ী সর্বোচ্চ শাস্তি পায়, তার জন্য সব ব্যবস্থা আমরা নেব আশ্বাস দিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘ অভিভাবক ও শিক্ষকদের অনুরোধ করব, আপনারা আপনাদের সন্তান ছাত্রদের অনুরোধ করুন, তারা যেন ফিরে আসে। ক্লাসরুমে ক্লাসে চলে আসে। যা হচ্ছে, এতে জনদুর্ভোগ বাড়ছে। সারা শহর আজকে অচল হয়ে যাচ্ছে, যা কাম্য নয়। যারা অবরোধ করছে, তাদের জন্য কাম্য নয়। যারা আমরা রাস্তায় চলাচল করছি, তাদের জন্য কাম্য নয়।’

গত তিন দিনে ৩০৯টি গাড়ি ভাঙা হয়েছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, গত তিন দিনে পোড়ানো হয়েছে আটটি গাড়ি। ২৯ তারিখ ১৫০টি গাড়ি ভেঙেছে, ৩০ তারিখে ২৫টি গাড়ি ভেঙেছে এবং ৩১ তারিখে ১৩৪টি গাড়ি ভেঙেছে। মোট ৩০৯টি গাড়ি ভেঙেছে। পোড়ানো হয়েছে ৮টি গাড়ি। এর মধ্যে পুলিশের ২টি ফায়ার সার্ভিসের ১টি, যা পুলিশের ক্ষতি, ফায়ার সার্ভিসেরও ক্ষতি। এই যে আমার কোমলমতি ছাত্রছাত্রীরা অবরোধ করছে। একে কাজে লাগিয়ে স্বার্থান্বেষী মহল নতুন করে জ্বালাও-পোড়াও ও গাড়ি ভাঙছে।’

আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘অনুরোধ করব, আমাদের প্রিয় কোমলমতি ছাত্রছাত্রীরা পড়াশোনায় মনোযোগী হবে। দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তি পায়, তার ব্যবস্থা নেব। সরকার ব্যবস্থা নেব। বিভিন্নভাবে দাবিদাওয়া আমাদের কাছে পৌঁছেছে। আমরা সবগুলো মেনে নিয়েছি। সবগুলোই মনে হয় যৌক্তিক। আমরা কোনোক্রমে লাইসেন্সবিহীন, রুট পারমিটবিহীন গাড়ি চলতে দেব না।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তিন দিন হয়ে যাচ্ছে, আমাদের সন্তানেরা রাস্তায়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও চান, আমাদের প্রিয় সন্তানেরা রাস্তা থেকে ফিরে আসুক। স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসুক।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘যথার্থ বলেছেন। আমাদের ইনটেনশন হলো যেন দুর্ঘটনা না ঘটে। সবাই যেন আইন মেনে চলে। মালিক, শ্রমিক ও পথচারীরা আইনটা মেনে চলে। পথচারীরাও ভুল করে। সবাই যাতে মেনে চলে, তার জন্য আমরা আইনটা করতে চাইছি।’

(নিউজ টোয়েন্টিফোর/তৌহিদ)

মন্তব্য