হালান্ডের মতে গার্দিওলা ‘পাগল’
হালান্ডের মতে গার্দিওলা ‘পাগল’

সংগৃহীত ছবি

হালান্ডের মতে গার্দিওলা ‘পাগল’

অনলাইন ডেস্ক

রেড বুল সালজবুর্গ ও বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের হয়ে গোলের বান ছোটানো আর্লিং হালান্ড প্রিমিয়ার লিগে এসে কেমন করেন সেটাই ছিল দেখার। ম্যানচেস্টার সিটির হয়ে অভিষেকটা ভুলে যাওয়ার মতো হলেও, লিগ শুরু হতেই হালান্ড প্রমাণ করে চলেছেন কেন তাকে ‘গোলমেশিন’ বলে ডাকা হয়।

প্রিমিয়ার লিগে এরই মধ্যে দুটি হ্যাটট্রিক করে ফেলেছেন আর্লিং হালান্ড। সিটিজেনদের হয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ অভিষেকেও করেছেন জোড়া গোল।

নতুন ক্লাবের জার্সি  গায়ে মাত্র ৮ ম্যাচ শেষে ১২ গোল করে ফেলেছেন এই অস্ট্রিয়ান তারকা।

অস্ট্রিয়ান কিংবা বুন্দেসলিগ থেকে প্রিমিয়ার লিগ ভিন্ন।  অনেক কঠিন, অনেক প্রতিযোগিতাপূর্ণ। হালান্ড তাই কতটা সফল হতে পারেন এ নিয়ে সন্দেহ ছিল অনেকের মনে।

সিটির জার্সি গায়ে তার দুর্দান্ত শুরুর পর এখন সেই প্রশ্ন ওঠাও বন্ধ হয়ে গেছে।

নতুন ক্লাবে এসেই সবকিছু মানিয়ে নেয়া, একের পর এক গোল করে যাওয়া। তাও পেপ গার্দিওলার কঠিন কৌশলের সঙ্গে খাপ খাইয়ে! হালান্ড বলছেন, গার্দিওলা পাগল, ফুটবল পাগল। তিনিও একই প্রকৃতির মানুষ। তাই রসায়নটা জমেছে বেশ।

টেলেমুন্ডো দেপোর্তেসকে দেয়া সাক্ষাৎকারে কোচ গার্দিওলাকে নিয়ে হালান্ড বলেন, ‘আমার মতে, সে আমার মতো ফুটবল পাগল। ফুটবল বলতেই সে পাগল, আর এটাই আমার ভালো লাগে। সে সবকিছুতেই ফুটবল নিয়ে ভাবে এবং কীভাবে উন্নতি করা সম্ভব তা খুঁজে বের করে। ’

ম্যানচেস্টার সিটির মতো দলে একাদশে জায়গা পাওয়াই দুষ্কর। কৌশলের সঙ্গে মানিয়ে নিতে তাই কোনো সময় অপচয় করেননি হালান্ড। তিনি বলেন, এখন পর্যন্ত সবকিছু ভালোই চলছে। আপনি গোলগুলো দেখতে পারেন এবং আমরা কীভাবে খেলছি। অন্যকিছু করে সময় অপচয় করার কোনো মানে হয় না। তাই আমি যত দ্রুত সম্ভব দলের সঙ্গে মানিয়ে নেয়ার চেষ্টা করেছি। ’

গার্দিওলার কৌশল প্রতিপক্ষের জন্য বোঝা খুব কষ্টের। জটিল ঠেকছে হালান্ডের কাছেও। তবে এই স্ট্রাইকার বলছেন জটিল হলেরও গার্দিওলার কৌশল দারুণ। তিনি বলেন, ‘আমরা খুব সুন্দর একটা সিস্টেমে খেলছি। হ্যাঁ, এটা বেশ জটিল কৌশল, তবে খুব ভালো। ’

news24bd.tv/সাব্বির