বাড়তি পেসার নিয়েই বিশ্বকাপে যাবে বাংলাদেশ 
বাড়তি পেসার নিয়েই বিশ্বকাপে যাবে বাংলাদেশ 

সংগৃহীত ছবি

বাড়তি পেসার নিয়েই বিশ্বকাপে যাবে বাংলাদেশ 

অনলাইন ডেস্ক

আইসিসির ইভেন্টগুলো বরাবরই স্পোর্টিং উইকেটে হয়। এবারের টি২০ বিশ্বকাপ আবার অস্ট্রেলিয়ায়। যেখানে পেসাররা পাবেন বাড়তি সুবিধা। যে কারণে প্রত্যেকটা দলই এবার স্কোয়াডে বাড়তি পেসার নিয়ে যাবে বিশ্বকাপ খেলতে।

ব্যতিক্রম না বাংলাদেশও। টি২০ বিশ্বকাপে টাইগাররাও একজন অতিরিক্ত পেসার নিয়ে অস্ট্রেলিয়ায় যাবে।

আজ নির্বাচক প্যানেলের সদস্য হাবিবুল বাশার সুমন মিরপুরে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, অস্ট্রেলিয়ায় উইকেটের অতিরিক্ত গতি আর বাউন্সের কারণে স্কোয়াডে পেসারদের আধিক্য থাকবে। তিনি বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়া কন্ডিশনে যখন খেলতে যাই স্বাভাবিকভাবে একজন বাড়তি পেসার নিয়ে যাওয়া হয়।

সেটাই চেষ্টা থাকে। এবারও তাই হবে। ’

যদিও সাম্প্রতিক সময়ে পেসারদের জন্য সময়টা ভালো যাচ্ছে না। মুস্তাফিজুর রহমান তো খেই হারিয়েছেন অনেক দিন হলো। তাসকিন আহমেদও চোট থেকে সেরে ওঠার পর পুরো ছন্দে ফিরতে পারেননি। ইনজুরির কারণে দলে আসা-যাওয়ার মধ্যে আছেন শরিফুল ইসলাম। হাসান মাহমুদ, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের সার্ভিসও একই কারণে পাচ্ছে না দল।

দলের পেসারদের মধ্যে সেরকম অর্থে ফর্মে নেই কেউ। টি২০ বিশ্বকাপের আগে যা বাংলাদেশের জন্য বড় দুশ্চিন্তার কারণ। বিশ্বকাপের আগে নিউজিল্যান্ডে একটি ত্রিদেশীয় সিরিজ খেলবে টাইগাররা। ওই সিরিজ দিয়েই ফর্মে ফেরার চেষ্টা করতে হবে পেসাররা।

সেখানেও পেসারদের পারফরম্যান্স যাই হোক না কেন, দলে একজন বাড়তি পেসার রাখা ছাড়া কোনো উপায় দেখছেন না হাবিবুল বাশার, ‘আমরা যখন ঘরের মাঠে খেলি, একজন বাড়তি স্পিনার নেয়া হয় (স্পিনিং উইকেট বলে)। একাদশে তিন পেসারের বেশিও খেলে না। কিন্তু যেহেতু অস্ট্রেলিয়ান কন্ডিশন, সেখানে তো একজন বাড়তি পেসার যাবেই। ’

টি২০ ফরম্যাটে মোটা দাগে ব্যর্থ বাংলাদেশ। এশিয়া কাপের গ্রুপ পর্ব থেকেই নিতে হয়েছে বিদায়। বিশ্বকাপেও তাই বেশি কিছুর প্রত্যাশা করছেন না বাশার। মন দিয়ে খেলাটাই প্রাধান্য পাচ্ছে তার কাছে, ‘বিশ্বকাপে আমরা খোলা মনে খেলতে চাই। এমন না যে, আমরা খুব বেশি কিছুর প্রত্যাশা নিয়ে বিশ্বকাপে যাচ্ছি। এটা আমার ব্যক্তিগত অভিমত। ’ 

news24bd.tv/সাব্বির