মিয়ানমারে আন্তর্জাতিক অপরাধের পরিধি ও মাত্রা বেড়েছে
মিয়ানমারে আন্তর্জাতিক অপরাধের পরিধি ও মাত্রা বেড়েছে

সংগৃহীত ছবি

মিয়ানমারে আন্তর্জাতিক অপরাধের পরিধি ও মাত্রা বেড়েছে

অনলাইন ডেস্ক

জান্তা সরকার ক্ষমতা দখলে নেয়ার পর থেকেই মিয়ানমারে আন্তর্জাতিক অপরাধ বেড়েছে। দেশটির সেনাবাহিনীর ক্ষমতার অপব্যবহারের মাত্রা এবং পরিধি বৃদ্ধি পেয়েছে। মিয়ানমারে মানবাধিকার লঙ্ঘনে জাতিসংঘের থেকে গঠিত একটি তদন্তকারী দলের প্রধানের বরাতে এ তথ্য জানিয়েছে আল-জাজিরা।

প্রতিবেদনে কাতার ভিত্তিক সংবাদ মাধ্যমটি জানায়, মিয়ানমার বিষয়ক স্বাধীন তদন্তকারী দলের প্রধান বলেছেন, ‘গত এক বছরে মিয়ানমারে আন্তর্জাতিক অপরাধের পরিধি ও মাত্রা নাটকীয়ভাবে প্রসারিত হয়েছে।

মিয়ানমারের জনগণের ওপর সংঘটিত অপরাধের তথ্য-প্রমাণ সংগ্রহ, সংরক্ষণ ও বিশ্লেষণে ২০১৮ সালে মিয়ানমার বিষয়ক স্বাধীন তদন্ত কমিশন আইআইএমএম গঠন করে জাতিসংঘ। জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে জাতীয়, আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক আদালতে বিচারের জন্য প্রমাণ সংগ্রহ ও কেস ফাইল করায় আইআইএমএম’র প্রধান লক্ষ্য।  

মিয়ানমারের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে সোমবার জাতিসংঘ মানবাধিকার পরিষদের অধিবেশনে একটি প্রতিবেদন দাখিল করে আইআইএমএম। জেনেভায় অনুষ্ঠিত হওয়া এ সম্মেলনে আইআইএমএম’র প্রধান নিকোলাস কৌমজিয়ান জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদকে বলেছেন, ‘অভ্যুত্থানের পরের ঘটনাগুলো এখন আমার তদন্তের প্রধান ফোকাস।

‘সামরিক বাহিনী দখলের পর থেকে দেশটিতে অপরাধের পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে। সন্দেহভাজন অপরাধের ভৌগলিক পরিধি এবং প্রকৃতি প্রসারিত হয়েছে। এমনকি বিচার বিভাগের রায়ও প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে,’ যোগ করেন তিনি।

মিয়ানমারের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে নিকোলাস বলেন, ‘সেখানে পরিস্থিতি আগের চেয়ে আরো জটিল হয়েছে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় রোহিঙ্গাদের ফেরার পরিবেশ সৃষ্টির অপেক্ষায় আছে। গত বছর ফেব্রুয়ারি মাস থেকে মিয়ানমারে মানবতাবিরোধী অপরাধ আরও জোরালো হয়েছে। মা-বাবাকে খুঁজে না পেলে শিশুদের নির্যাতন ও বন্দি করা হচ্ছে। ’

মৃত্যুদণ্ড সাজা ফিরে আসা

প্রায় ৩০ বছর পর গত জুনে চারজন অভ্যুত্থানবিরোধী রাজনীতিবিদ ও কর্মীকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে হত্যা করেছে জান্তা সরকার।

মৃত্যুদণ্ড নিয়ে আইআইএমএম জানায়, জুনে যে চারটি ফাঁসি দেওয়া সবগুলোই হয়েছে সামরিক আদালত দ্বারা। দেশটির এমন পরিস্থিতিতে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা খুনের সমতুল্য।

এ দিকে রোহিঙ্গাসহ মিয়ানমারের জনগণের ওপর সংঘটিত অপরাধের আইআইএমএম’র কাছে লাখ লাখ তথ্য-প্রমাণ সরবরাহ করেছে ফেসবুক।

আইআইএমএম প্রধান নিকোলাস বলেন, ‘ফেসবুক মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর দ্বারা নিয়ন্ত্রিত অ্যাকাউন্ট থেকে প্রকাশ করা আইটেমগুলো হস্তান্তর করেছে। এসব আইটেমগুলো ভুলভাবে উপস্থাপন করার কারণে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ সরিয়ে নিয়েছে। ’

বার্ষিক প্রতিবেদন উপস্থাপনের সময় নিকোলাস জানান, এবারের বার্ষিক প্রতিবেদনে আইআইএমএম ২০০টিরও বেশি উৎস থেকে পাওয়া প্রায় ৩০ লাখ তথ্য সংগ্রহ ও বিশ্লেষণ করেছে। এ সংখ্যা আগের বছরের চেয়ে দ্বিগুণেরও বেশি। মানবাধিকার পরিষদে উপস্থাপনের জন্য কয়েক দিন আগে প্রতিবেদন তৈরির পর তাদের কাছে আরও দ্বিগুণের বেশি তথ্য এসেছে। সংগৃহীত তথ্য বিশ্লেষণ করতে গিয়ে এখন আইআইএমএমকে চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘আইআইএমএম আন্তর্জাতিক বিচার আদালত (আইসিজে), আন্তর্জাতিক আদালত (আইসিসি) ও অন্যান্য বিচারিক কর্তৃপক্ষকে সরবরাহের জন্য ৬৭টি তথ্য-প্রমাণ ও বিশ্লেষণের প্যাকেজ তৈরি করেছে। তদন্তের স্বার্থে মিয়ানমার সফরের জন্য যোগাযোগ করেও কোনো জবাব পাননি। ’

news24bd.tv/মামুন