‘কম স্টাফ ও অতিরিক্ত কাজ’: যুক্তরাষ্ট্রে ধর্মঘটে ১৫ হাজার নার্স
‘কম স্টাফ ও অতিরিক্ত কাজ’: যুক্তরাষ্ট্রে ধর্মঘটে ১৫ হাজার নার্স

সংগৃহীত ছবি

‘কম স্টাফ ও অতিরিক্ত কাজ’: যুক্তরাষ্ট্রে ধর্মঘটে ১৫ হাজার নার্স

অনলাইন ডেস্ক

চাহিদার তুলনায় ‘কম স্টাফ ও অতিরিক্ত কাজ’ বন্ধের দাবিতে যুক্তরাষ্ট্রের মিনেসোটা অঞ্চলের ১৫ হাজার নার্স ধর্মঘটে নেমেছেন। এতে রোগীর স্বাস্থ্যের উপর বেশ প্রভাব পড়েছে বলে ওঠে এসেছে দেশটির বেশকিছু গনমাধ্যমে।

গত তিন দিন ধরে চলা এ ধর্মঘটটি যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসের অন্যতম বৃহত্তম ধর্মঘট। যার ফলে রোগীর চাপ সামলাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে ডক্টরদের।

করোনা মহামারীর প্রভাবে দেশজুড়েই হাসপাতালগুলোতে চলছে কর্মী সংকট। এরমধ্যে নতুন করে শুরু হওয়া এই ধর্মঘটের ফলে রোগীর যত্নে বেশ ঘাটতি দেখা দিচ্ছে।

মিনেসোটা নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘তারা গত পাঁচ মাসেরও বেশি সময় ধরে একটি নতুন চুক্তির ব্যাপারে আলোচনা করছে এবং নার্সরা সপ্তাহ ধরেই চুক্তি ছাড়াই কাজ করছে। হাসপাতালের নির্বাহীরা ইতিমধ্যেই আমাদের হাসপাতালে স্টাফ ধরে রাখার সংকট সমাধানে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

ফলে নার্সরা নিজেদের বিছানায় যাওয়ার সময়টুকুও পাচ্ছে না। কম স্টাফের ফলে অতিরিক্ত পরিশ্রম করতে হচ্ছে তাদের। ’

এরইমধ্যে বিষয়টি সমাধানে মধ্যস্থতা করতে নার্সদের ইউনিয়নের সাথে আলোচনায় বসতে চেয়েছিল টুইন সিটিস হসপিটাল গ্রুপ। ওই অঞ্চলের মোট ১৩টি হাসপাতালের চারটিই রয়েছে এই গ্রুপের অধীনে।

গ্রুপটি তাদের ওয়েবসাইটে জানিয়েছে, ‘একজন প্রশিক্ষিত মধ্যস্থতাকারী প্রয়োজনীয় মূল উপাদানগুলিতে ফোকাস করতে সহায়তা করতে পারে। তবে, নার্সদের ইউনিয়ন মধ্যস্থতার জন্য আমাদের সমস্ত অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করেছে। ’

এদিকে নার্স ধর্মঘটকে সমর্থন জানিয়েছে ওয়াশিংটনে মার্কিন আইন প্রণেতারা। যার মধ্যে প্রবীণ সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্সও রয়েছেন। তিনি জানান, ‘নার্সরা আমাদের স্বাস্থ্যসেবা ব্যবস্থার মেরুদণ্ড। তাদের ন্যায্য সময়সূচী এবং উচ্চ মজুরির আহ্বান জানাচ্ছি। ’

ইউএস ব্যুরো অফ লেবার স্ট্যাটিস্টিকের সেপ্টেম্বরে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুসারে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে স্বাস্থ্যসেবায় কর্মসংস্থান এখনও প্রাক-মহামারী স্তরের নীচে। গত ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারির তুলনায় দেশটির এখন স্বাস্থ্যসেবায় প্রায় ৩৭ হাজার কর্মী কম কাজ করছে।

news24bd.tv/আমিরুল