‘পরিশ্রম এবং ধৈর্য্য ফল এনে দিয়েছে’
‘পরিশ্রম এবং ধৈর্য্য ফল এনে দিয়েছে’

বাফুফে

 ‍নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ 

‘পরিশ্রম এবং ধৈর্য্য ফল এনে দিয়েছে’

অনলাইন ডেস্ক

সোমবার ভারতের কাছে হেরে অনূর্ধ্ব-১৭ সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নেয় বাংলাদেশের কিশোররা। তবে সেই হারের ক্ষতে যেন প্রলেপ দিল জাতীয় নারী ফুটবল দল। মঙ্গলবার সাফের মূল আসরে ভারতকে হারিয়ে দিয়েছে সাবিনারা। তাও ৩-০ গোলের বড় ব্যবধানে।

সিনিয়র সাফ ফুটবলে আগে কখনও ভারতকে হারাতে পারেনি বাংলাদেশ। কাঠমান্ডুতে আসা এমন ঐতিহাসিক জয়ের পর তাই ক্রীড়াঙ্গনে বইছে আনন্দের জোয়ার। ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ দলের কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন এই জয়ের পেছনে সাবিনা-কৃষ্ণাদের অক্লান্ত পরিশ্রমকে সামনে তুলে এনেছেন, ‘আপনার সবাই জানেন আমাদের নারী ফুটবলাররা অনেক পরিশ্রম করে। অনেক ঈদ ও নানা উৎসবে তারা বাড়ি যায় না।

তারা বাফুফে ভবনেই থাকে এবং সব সময় অনুশীলন করে। মেয়েদের এই পরিশ্রম এবং ধৈর্য্য ফল এনে দিয়েছে। ’

সাফে ২০১০ সালে প্রথমবার ভারতের মুখোমুখি বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল। কক্সবাজারে সেবার ৬-০ গোলে উড়ে গিয়েছিল লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। এরপর আরও আটবার দলটির মুখোমুখি হলেও জয় তো দূরের কথা, সফলতা বলতে নামের পাশে রয়েছে একটি ড্র। জয়টা তাই বেশ স্মরণীয় বাংলাদেশ কোচ ছোটনের কাছে।

ম্যাচ জয়ের পর গোলাম রব্বানী ছোটনের উদযাপন      ৥বাফুফে

অবিস্মরণীয় সেই জয়ের পেছনের কারণ হিসেবে ছোটন সামনে এনেছেন নারীদের ভয়ডরহীন খেলার মানসিকতা। তিনি বলেন, ‘আমাদের সেমিফাইনাল নিশ্চিত হয়েছিল ফলে আমাদের পিছুটান ছিল না। আমরা জেতার জন্যই খেলেছি। ’ সেমিফাইনাল নিশ্চিত হওয়ায় অনেকে খেলোয়াড় বিশ্রামে রাখার কথা বলেছিলেন কোচ সেদিকে হাটেননি, ‘আমরা পূর্ণ শক্তির দল নিয়েই নেমেছি এবং এর ফল পেয়েছি। ’

নারী ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে ভারতের চেয়ে বাংলাদেশ ঢের পিছিয়ে। এত শক্তিধর দলের সঙ্গে জেতার জন্য কোচ তার শিষ্যদেরই অবদান দিয়েছেন, ‘ভারত শুধু সাফ নয়, এশিয়ারই অন্যতম শক্তিশালী দল। মেয়েরা দারুণ খেলেছে এজন্যই আমাদের জয় এসেছে। ’ ভারতের বিপক্ষে দাপুটে জয়ে ফুটবলারদের পরিপক্বতার ছাপই নজরে এসেছে ছোটনের, ‘দেশ থেকে আসার আগে বলেছি, পরিবর্তন দেখা যাবে। সেই পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে। আমাদের মেয়েরা আগে অনেক ছোট ছিল। এখন তারা পরিপক্ব হচ্ছে এবং খেলায় সেটার ছাপ স্পষ্ট। ’

news24bd.tv/সাব্বির