ইউক্রেনকে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র দিতে বিরোধিতা মার্কিন সামরিক কর্মকর্তাদের
ইউক্রেনকে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র দিতে বিরোধিতা মার্কিন সামরিক কর্মকর্তাদের

সংগৃহীত ছবি

ইউক্রেনকে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র দিতে বিরোধিতা মার্কিন সামরিক কর্মকর্তাদের

অনলাইন ডেস্ক

ইউক্রেনে সামরিক অভিযান চালাচ্ছে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম পরাশক্তি রাশিয়া। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ভোর থেকে শুরু হয় এই অভিযান প্রায় সাত মাস ধরে চলছে। চলমান যুদ্ধে ইউক্রেনকে অস্ত্রসহ বিভিন্নভাবে সহায়তা করে আসছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। ইউক্রেনে রাশিয়ার রেডলাইন সম্পর্কে ওয়াশিংটনকে কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়েছে মস্কো।

তারই পরিপ্রেক্ষিতে মার্কিন সামরিক বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তারা কিয়েভকে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র দেওয়ার বিরোধিতা করেছেন।

আজ শনিবার মার্কিন নিউজ চ্যানেল এনবিসি জানায়, আমেরিকার সশস্ত্র বাহিনীর কর্মকর্তারা হোয়াইট হাউজকে পরামর্শ দিয়েছে ইউক্রেনকে যেন দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র দেওয়া না হয়। ইউক্রেন দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র পেলে রাশিয়ার সঙ্গে সর্বাত্মক যুদ্ধে জড়িয়ে পড়তে পারে বলে জানান ওই সামরিক নেতারা।

মার্কিন দুই পদস্থ সামরিক কর্মকর্তা এনবিসিকে বলেন, রাশিয়ার কাছ থেকে বিপজ্জনক প্রতিক্রিয়ার আশঙ্কায় বাইডেন প্রশাসন দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্রের জন্য ইউক্রেনের আবেদন স্থগিত রেখেছে।

গত বৃহস্পতিবার রাশিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মারিয়া জাখারোভা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে এ বিষয়ে কড়া সতর্কবার্তা দিয়েছেন। তারপরই মস্কোর প্রতিক্রিয়ার ভয়ে কিয়েভকে ক্ষেপণাস্ত্র দেয়ার বিরুদ্ধে সামরিক নেতাদের পরামর্শের খবর গণমাধ্যমে এসেছে।

জাখারোভা বলেন, আমেরিকা কিয়েভকে দূর পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র সরবরাহ করার মানে হলো রেডলাইন অতিক্রম করা। তা হবে রাশিয়ার বিরুদ্ধে আমেরিকার সরাসরি যুদ্ধে নামার শামিল।

এর আগেও আমেরিকায় নিযুক্ত রুশ রাষ্ট্রদূত আনাতোলি আন্তোনোভ হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, কিয়েভেকে দূর পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র দেওয়ার অর্থ হবে রাশিয়ার বিরুদ্ধে আমেরিকার সরাসরি যুদ্ধে অংশ নেয়া।

সামরিক অভিযান শুরুর পর থেকে রুশ আগ্রাসন থেকে নিজেদের রক্ষা করতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও অন্যান্য পশ্চিমা মিত্রদের কাছ থেকে প্রচুর পরিমাণে অস্ত্র চায় কিয়েভ। এরইমধ্যে ইউক্রেনের বেশ কয়েকটি নগরী দখলে নিয়েছে রুশ বাহিনী।

সূত্র : এনবিসি নিউজ 

news24bd.tv/রিমু