ইউক্রেনে পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার না করতে পুতিনকে বাইডেনের সতর্কতা
ইউক্রেনে পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার না করতে পুতিনকে বাইডেনের সতর্কতা

ছবি: সিবিএস নিউজ।

ইউক্রেনে পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার না করতে পুতিনকে বাইডেনের সতর্কতা

অনলাইন ডেস্ক

যুদ্ধ বন্ধের আহ্বান জানালেও সেটা খুব ফলপ্রসূ হয়নি। এবার রাশিয়াকে পরমাণু অস্ত্রের ব্যবহার বন্ধের বিষয়ে সতর্ক করলো ওয়াশিংটন। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ইউক্রেনের যুদ্ধে রাসায়নিক কিম্বা ট্যাকটিক্যাল পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার না করতে রাশিয়াকে সতর্ক করেছেন।

শুক্রবার সিবিএস নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে শঙ্কা প্রকাশ করে বাইডেন বলেন, এ ধরনের অস্ত্র ব্যবহার করা হলে 'যুদ্ধের চেহারা এমনভাবে বদলে যাবে যা দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর কখনো দেখা যায়নি।

' তবে রাশিয়ার এমন পদক্ষেপে অ্যামেরিকার অবস্থান কী, সেটা পরিষ্কার করেননি প্রেসিডেন্ট বাইডেন।

সিবিএসের ৬০ মিনিটের সাক্ষাৎকারে বাইডেনকে প্রশ্ন করা হয়, ইউক্রেনের যুদ্ধে প্রেসিডেন্ট পুতিন যদি গণ-বিধ্বংসী অস্ত্র ব্যবহার করার কথা বিবেচনা করে থাকেন তাহলে এবিষয়ে তিনি তাকে কী বলবেন? এসময় বাইডেনের উত্তর ছিলো- 'করবেন না, করবেন না, করবেন না'।

চলতি বছরের শুরুর দিকে ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরু করে রাশিয়া। সে সময়ে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ঘোষণা করেন, ইউক্রেন ইস্যুতে দেশের পরমাণু শক্তি যেন 'বিশেষ সতর্কাবস্থা' অবলম্বন করে।

দেশের প্রতিরক্ষা বাহিনীর প্রধানদের তিনি বলেছিলেন, যুদ্ধের মনোভাব নয়, বরং পশ্চিমাদের আগ্রাসী মনোভাবের জবাব দিতেই তিনি এটা করেছেন।

গণমাধ্যম ও বিভিন্ন দেশের সিকিউরিটি ইন্টেলিজেন্সদের তথ্যমতে, রাশিয়ার কাছে ৫,৯৭৭টি নিউক্লিয়ার ওয়ারহেড বা পরমাণু অস্ত্র রয়েছে। তারা বলছেন এর মধ্যে প্রায় দেড় হাজার ওয়ারহেডের মেয়াদ উত্তীর্ণ এবং সেগুলো বাতিল করে দেয়ার কথা। বাকি সাড়ে চার হাজার কিংবা তার চেয়েও কিছু বেশি ওয়ারহেডের মধ্যে বেশিরভাগ কৌশলগত পারমাণবিক অস্ত্র- ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র, বা রকেট, যা দূরপাল্লার হামলা চালাতে সক্ষম। বাকি অস্ত্রসমূহ ছোট বা কম বিধ্বংসী পারমাণবিক অস্ত্র। যা স্বল্প-পাল্লা বা কম দূরত্বের- মূলত যুদ্ধক্ষেত্রে বা সাগরে ব্যবহারযোগ্য অস্ত্র।

বিশ্লেষকদের মতে, এই মুহূর্তে রাশিয়ার প্রায় ১৫০০ ওয়ারহেড মোতায়েনকৃত অবস্থায় আছে, যার অর্থ হচ্ছে সেগুলো ক্ষেপণাস্ত্র ও বোমারু ঘাঁটি এবং সমুদ্রে সাবমেরিনে বসানো আছে। তবে ইউক্রেনের যুদ্ধে রাশিয়ার পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের সম্ভাবনা এখনও পর্যন্ত খুব কম।

news24bd.tv/FA