আই লাভ বাংলাদেশ : রোনালদো
আই লাভ বাংলাদেশ : রোনালদো

আই লাভ বাংলাদেশ : রোনালদো

ইসমাইল হোসাইন রায়হান :

আমি বাংলাদেশকে চিনি, বাংলাদেশকে ভালোবাসি বললেন সর্বকালের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। গত শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) পর্তুগালের রাজধানী লিসবনের একটি অভিজাত রেস্টুরেন্টে নৈশভোজে আসেন এই তারকা খেলোয়াড়। সঙ্গে ছিলেন তার সহধর্মিনী। নৈশভোজের ফাঁকেই তিনি সকলের সঙ্গে কুশল বিনিময় এবং ফটোসেশনে অংশগ্রহণ করেন।

বাংলাদেশি শেফের হাতে পিজ্জা খেয়ে ফটোসেশনের সময় কথোপকথনের এক পর্যায়ে তিনি বলেন, আই নো বাংলাদেশ, আই লাভ বাংলাদেশ।

অভিজাত রেস্টুরেন্টটির সেফ ইসমাইল হোসাইন রায়হান বলেন, রোনালদোর আগমনে আমরা ব্যাপক নার্ভাস ছিলাম। কেননা তার সিকিউরিটি ও মুখে স্বাদ লাগানো ছিল আমাদের মুখ্য বিষয়। ঠিক রাত ৮টায় ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো আমাদের রেস্টুরেন্টে প্রবেশ করেন।

প্রথমেই তিনি পিজ্জা খাবেন বলে সম্মতি প্রদান করলেন পরে আমি পিজ্জা বানিয়ে দেই।  

রোনালদো

রোনালদো নিজ কন্ঠে আমাদের গান শোনালেন। প্রায় ৫ ঘণ্টা মনে হলো জীবনের একটা অসাধারণ মূহুর্ত কাটালাম। খুব আনন্দের সঙ্গে খাওয়া শেষে ছবি তোলার সময় রোনালদো কে বললাম-

ইসমাইল হোসাইন রায়হান : হ্যালো

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো : তোমার দেশ কোথায়? 

ইসমাইল হোসাইন রায়হান : আমি বাংলাদেশ থেকে। আপনার অসংখ্য ভক্ত রয়েছে বাংলাদেশে।  

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো : আমি জানি। আমি বাংলাদেশকে ভালোবাসি। তোমরা খুবই পরিশ্রমী। শুভকামনা রইলো।  

ইসমাইল হোসাইন রায়হান : আপনি রাণীর শেষকৃত্যের প্রোগ্রাম নিয়ে ফেসবুকে যে পোস্ট দিয়েছিলেন সেখানে আমাদের প্রধানমন্ত্রী শ্রদ্ধা জানাতে গিয়েছেন।   

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো : শুনে ভালো লাগলো।

প্রিমিয়ার লিগ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও পর্তুগাল জাতীয় দলে ফরোয়ার্ড হিসেবে খেলে থাকেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। প্রায়ই বিশ্বের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় এবং সর্বকালের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় হিসেবে গণ্য রোনালদো পাঁচটি ব্যালন ডি’অর এবং চারটি ইউরোপিয়ান গোল্ডেন শু অর্জন করেছেন।  যা কোন ইউরোপীয় খেলোয়াড় হিসেবে রেকর্ড সংখ্যক জয়। কর্মজীবনে তিনি ৩২টি প্রধান সারির শিরোপা জয় করেছেন।  তন্মধ্যে রয়েছে সাতটি লিগ শিরোপা, পাঁচটি উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগ, একটি উয়েফা ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপ, এবং একটি উয়েফা নেশনস লিগ শিরোপা।  

রোনালদোর চ্যাম্পিয়নস লিগে সর্বাধিক ১৩৪টি গোল এবং ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপে সর্বাধিক ১২টি গোলের রেকর্ড রয়েছে। তিনি অল্পসংখ্যক খেলোয়াড়দের একজন যিনি ১,১০০টির উপর পেশাদার খেলায় অংশগ্রহণ করেছেন। তার ক্লাব ও দেশের হয়ে ৭৯০টির বেশি গোল করেছেন। তিনি ১০০টি আন্তর্জাতিক গোল করা দ্বিতীয় পুরুষ ফুটবলার এবং প্রথম ইউরোপীয়।

news24bd.tv/কামরুল