আরও একটি এলাকা পুনর্দখলের দাবি ইউক্রেনের
আরও একটি এলাকা পুনর্দখলের দাবি ইউক্রেনের

ওসকিল নদীর পূর্ব তীরের নিয়ন্ত্রণ পুনর্দখলের দাবি করেছে কিয়েভ

আরও একটি এলাকা পুনর্দখলের দাবি ইউক্রেনের

নিবিড় আমীন

ইউক্রেন-রাশিয়ার চলমান যুদ্ধে আরও একটি এলাকা পুনর্দখলের দাবি করেছে কিয়েভ। অন্যদিকে পাল্টা হামলা অব্যাহত রেখেছে মস্কোও। দোনেৎস্ক শহরে গোলাবর্ষণে সোমবারও ঘটেছে হতাহতের ঘটনা।

রাশিয়ার সঙ্গে চলমান যুদ্ধে এরইমধ্যে ইউক্রেনীয় বাহিনীর প্রতিরোধে খারকিভ অঞ্চল থেকে প্রায় সম্পূর্ণ পিছু হটেছে রুশ বাহিনী।

ওসকিল নদীর পূর্ব তীরের নিয়ন্ত্রণ পুনর্দখলের দাবি করেছে কিয়েভ। প্রতিবেশি লুহানস্ক পুনর্দখল করাই ইউক্রেনীয় সেনাদের পরবর্তী লক্ষ্য বলে জানিয়েছেন ইউক্রেনের এক আঞ্চলিক নেতা। রুশ সেনাদের প্রতি আবারও সতর্কবার্তা দিলেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কিও।

জেলেনস্কি বলেন, ইউক্রেনে রুশ সেনাদের জন্য এখন মাত্র দু'টি পথ খোলা রয়েছে।

হয় আমাদের ভূমি থেকে পালিয়ে যেতে হবে। আর নয়তো আত্মসমর্পণ করতে হবে।

এরমধ্যেই ইউক্রেনের দক্ষিণাঞ্চলে এক পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র হামলার অভিযোগ উঠেছে মস্কোর বিরুদ্ধে। পূর্বাঞ্চলীয় শহর দোনেৎস্কে সোমবার গোলাবর্ষণে প্রাণ হারিয়েছেন ১৩ জন। শহরটির রুশ সমর্থিত মেয়রের বরাতে এ তথ্য দিয়েছে রয়টার্স।

রুশ সেনাদের কাছ থেকে পুনরুদ্ধার করা এলাকায় আবিষ্কৃত নির্যাতন কেন্দ্রগুলোতে বন্দিদের ব্যাপক নির্যাতন চালানো হতো বলে দাবি করেছে ইউক্রেন। ইজিউমে পাওয়া গণকবর থেকে এখন পর্যন্ত ১৪৬টি মরদেহ উঠিয়েছেন ইউক্রেনীয় ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা। গণহত্যা সংগঠিত করে মরদেহগুলো রুশ সেনারা গণকবরে রেখেছে বলে দাবি কিয়েভের।

এদিকে, ইউরোপীয় বন্দরগুলোতে রাশিয়ার আটকা পড়া ৩শ টন সার অবমুক্ত করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস।

news24bd.tv/রিমু