গ্যাস সংযোগের দাবিতে পেট্রোবাংলার সামনে মানববন্ধন
গ্যাস সংযোগের দাবিতে পেট্রোবাংলার সামনে মানববন্ধন

গ্যাস সংযোগের দাবিতে পেট্রোবাংলার সামনে মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক

দীর্ঘ ৭ বছর ধরে সিরিয়ালে থাকা আবাসিক গ্রাহকদের গ্যাস সংযোগ, নতুন আবাসিক গ্যাস সংযোগ চালু ও শিল্প-বাণিজ্যিক গ্যাস সংযোগ প্রদানের দাবিতে মানববন্ধন করেছেন নির্মাণ ঠিকাদার ঐক্য ফেডারেশন বাংলাদেশ-এর নেতা কর্মীরা।

মঙ্গলবার রাজধানীর কাওরান বাজারে পেট্রোবাংলার সামনে মানববন্ধনে সংগঠনের সভাপতি আবুল হাসেম পাটোয়ারী ও সাধারণ সম্পাদক এ কে এম অলিউল্লা হকসহ হাজারের বেশি গ্রাহক মানববন্ধনে অংশগ্রহণ করেন। মাবনবন্ধনে আবুল হাসেম পাটোয়ারী বলেন, পেট্রোবাংলার ৬ সাবসিডিয়ারি কোম্পানি লিমিটেডের তিতাস গ্যাস, কর্ণফুলী গ্যাস, বাখরাবাদ গ্যাস, পশ্চিমাঞ্চল গ্যাস, জালালাবাদ গ্যাস, সুন্দরবন গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড এর অধীনে গত ৭ বছর ধরে সিরিয়ালে থাকার পরেও গ্যাস সংযোগ দিচ্ছে না।

তিনি বলেন, গত ২০১৫ সাল থেকে স্যাস সংযোগ প্রাপ্তির জন্য ডিমান্ডনোট, অভ্যন্তরীণ পাইপ লাইন নির্মাণ, রাস্তা কাটার অনুমতি, ঠিকাদারি কাজের বিলসহ অন্যান্য সকল অর্থ ব্যয় করে আবেদন জমাদানকারী সিরিয়ালে অপেক্ষমান থাকা প্রায় ২ লাখ ১৫ হাজার গ্রাহকদের গ্যাস সংযোগ দিতে বিলম্ব করছে।

গ্যাস লাইন হতে চুলা বর্ধিত করণ কাজ চালু ও নতুন গ্যাস লাইন সংযোগ প্রদানের দাবিতে এই মানববন্ধন।  

আবুল হাসেম বলেন, গ্যাস সংযোগ না পাওয়ার কারণে ঢাকা, চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, সিরাজগঞ্জ, রাজশাহী, ভোলা ও সিলেটসহ অন্যান্য নগরবাসী চরম দুর্ভোগে পড়েছেন।

মানববন্ধনে তিনি আরও বলেন, বর্তমানে গ্রাহকদের গ্যাস সংযোগ না পেয়ে প্রতিনিয়ত ঠিকাদারদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ ও অসন্তোষ বাড়ছে। শুধু তাই নয়, হাজার হাজার ভুক্তভোগী গ্রাহকদের সংযোগ প্রদানের নীতিমালা অনুযায়ী প্রক্রিয়া করার দায়িত্ব নেওয়ায় ঠিকাদাররা গ্রাহক কর্তৃক লাঞ্ছিত ও হামলার শিকার হচ্ছেন।

দ্রুত সময়ের মধ্যে গ্যাস সংযোগ না দিলে আমরা সারাদেশে সুবিধা বঞ্চিত গ্রাহকদের নিয়ে তীব্র আন্দোলনের কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবো।

তিনি বলেন, হঠাৎ করে ২০১৫ ইং সালে সারাদেশে বিনা নোটিশে গ্যাস সংযোগ কার্যক্রম বন্ধ রাখার কারণে প্রায় ২৩০০ ঠিকাদার এবং তাদের সাথে সংশ্লিষ্ট কাজে কর্মরত কয়েক হাজার লোক বেকার হয়ে আর্থিক উপার্জন না থাকায় পরিবার পরিজন নিয়ে দুর্বিষহ জীবন যাপন করছেন। যা উন্নয়নমুখী ও গণতান্ত্রিক দেশে মোটেও কাম্য হতে পারে না।

news24bd.tv/FA