আনন্দে ভাসছে ফুটবল কন্যাদের গ্রাম কলসিন্দুর
আনন্দে ভাসছে ফুটবল কন্যাদের গ্রাম কলসিন্দুর

ফুটবল খেলছেন কলসিন্দুর গ্রামের মেয়েরা

আনন্দে ভাসছে ফুটবল কন্যাদের গ্রাম কলসিন্দুর

সৈয়দ নোমান, ময়মনসিংহ

হিমালয়ের দেশে হিমালয়ের চূড়ায় ওঠার কথা নেপালীদেরই। কিন্তু হিমালয়ের চূড়ায় উঠলো বাংলার বাঘিনীরা। বাংলাদেশকে থামানোর সাধ্য যেন নেপালের ছিলই না। নেপালকে ৩-১ গোলে হারিয়ে সাফ চ্যাম্পিয়ন শিপের অধরা ট্রফিটা অবশেষে জিতল বাংলাদেশ।

আর এই জয়ে এখন আনন্দে ভাসছে ফুটবল কন্যার গ্রাম ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলার কলসিন্দুর।

ম্যাচের শুরুতেই বদলি হিসেবে নামেন শামসুন্নাহার জুনিয়র। কিন্তু কে জানত তিনিই এগিয়ে নেবেন বাংলাদেশকে। ম্যাচের ১৪ মিনিটে তার পা থেকেই লিড পায় বাংলাদেশ।

 

ময়মনসিংহের প্রত্যন্ত অঞ্চল কলসিন্দুর গ্রামের মেয়ে শামছুন্নাহার জুনিয়র। সেদিন বিজয়ের জন্য যে একাদশ মাঠে খেলেছে, তার মধ্যে ৮ জনই ছিল কলসিন্দুরের মেয়ে।  

অজপাড়া গায়ে বেড়ে উঠা এই ফুটবল কন্যাদের সাফল্যে গর্বিত তার নিজ এলাকার মানুষ, পরিবার পরিজন।  

শুরুটা ২০১১ সালে। তখন মফিজ স্যার আর এই জুয়েল নামে দুজনে ফুটবলের অনুশীলন করাতেন মেয়েদের। আজ সেই মেয়েদের হাত ধরেই এসেছে বিজয়।  

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের পাঁচ ম্যাচের মধ্যে একমাত্র ফাইনালেই বাংলাদেশেকে একটি গোল হজম করতে হয়েছে। আরও কোনো ম্যাচে গোল খায়নি বাংলাদেশ, অন্যদিকে বাংলাদেশ প্রতিপক্ষের জালে গোল করেছে ২৩টি।

news24bd.tv/ইস্রাফিল