মুন্সিগঞ্জে পুলিশের সাথে বিএনপির সংঘর্ষ, আহত ৬৮
মুন্সিগঞ্জে পুলিশের সাথে বিএনপির সংঘর্ষ, আহত ৬৮

সংগৃহীত ছবি

মুন্সিগঞ্জে পুলিশের সাথে বিএনপির সংঘর্ষ, আহত ৬৮

অনলাইন ডেস্ক

জ্বালানি তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি ও তিন নেতা-কর্মীর নিহত হওয়ার প্রতিবাদে মুন্সিগঞ্জ সদর উপজেলার মুক্তারপুরে এক কর্মসূচির আয়োজন করে বিএনপি নেতা-কর্মীরা। সমাবেশের এক পর্যায়ে বিএনপির সাথে সংঘর্ষ হয় পুলিশের। এ ঘটনায় পুলিশ-সাংবাদিকসহ উভয় পক্ষের অন্তত ৭০ জন আহত হয়েছেন। আহত ব্যক্তিদের মধ্যে বিএনপির নেতা-কর্মী ৫০-৬০ জন, ৬ জন সংবাদকর্মী এবং ৭ থেকে ৮ জন পুলিশ সদস্য রয়েছেন।


 
এর আগে মুন্সিগঞ্জের মুক্তারপুরের পুরোনো ফেরিঘাট এলাকায় বিকেল পৌনে চারটার দিকে ছোট ছোট মিছিল নিয়ে এগোচ্ছিলেন বিএনপির নেতা-কর্মীরা। পরে কর্মসূচিতে পুলিশ বাধা দিলে বিএনপির কর্মীদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। এসময় দফায় দফায় সংঘর্ষে পুরো এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। একপর্যায়ে কয়েক শ নেতা-কর্মীর হামলায় কোণঠাসা হয়ে পড়ে পুলিশ।
জীবন বাঁচাতে কয়েকজন পুলিশ সদস্যকে নদীতে ঝাঁপ দিতেও দেখা গেছে।

এ ঘটনায় আহতদের মধ্যে তিনজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তারা হলেন মুন্সিগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের কর্মী তারেক রহমান (২০), মুক্তারপুর ওয়ার্ড যুবদলের কর্মী শাওন খান (২২) ও বিএনপির সমর্থক জাহাঙ্গীর মাদবর (৩৮)। এর মধ্যে জাহাঙ্গীরের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তার একটি চোখ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা।

এ ঘটনায় বিএনপির নেতা-কর্মীদের দাবি, পুলিশের ছোড়া কাঁদানে গ্যাস, গুলি ও রাবার বুলেটে তাদের ৫০-৬০ জন নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন। বিপরীতে পুলিশের দাবি সংঘর্ষে ৮ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

মুন্সিগঞ্জ সদর থানার ওসি তারিকুজ্জামান বলেন, ‘পুলিশ শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থান করছিল। বিএনপির নেতা-কর্মীরা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে পুলিশের দিকে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকেন। নিষেধ করায় পুলিশের ওপর হামলা করেন। ’

news24bd.tv/আমিরুল

এই রকম আরও টপিক