আমি এখন সুস্থ, উদযাপনটা স্মরণীয় হয়ে থাকবে: ঋতুপর্ণা চাকমা
আমি এখন সুস্থ, উদযাপনটা স্মরণীয় হয়ে থাকবে: ঋতুপর্ণা চাকমা

সংগৃহীত ছবি

আমি এখন সুস্থ, উদযাপনটা স্মরণীয় হয়ে থাকবে: ঋতুপর্ণা চাকমা

অনলাইন ডেস্ক

নেপালে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ জিতে ইতিহাস গড়ে দেশে ফিরেছে বাংলার মেয়েরা। তাদের বরণ করে নিয়েছে সর্বস্তরের মানুষ। ছাদখোলা বাসে করে মেয়েদের আনন্দ র‌্যালি দেখতে ভিড় করেছিল লাখো ফুটবলপ্রেমী। তবে উদযাপনে বিপত্তি বাধে সেই বাসে ঋতুপর্ণা চাকমা মাথায় আঘাত পেলে।

আশার কথা সুস্থ আছেন তিনি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভক্তদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে একটি পোস্ট দিয়েছেন সাফ নারী দলের অন্যতম সদস্য।

ফেসবুকে তিনি লিখেন, ‘প্রিয় ভক্তরা, অসংখ্য ধন্যবাদ আমাদের উৎসাহিত করা ও এই ভালোবাসার মুহূর্তটুকু ভাগাভাগি করে নেওয়ার জন্য। এই দিনটা স্মরণীয় হয়ে থাকবে ইতিহাসের পাতায়।

তিনি আরও লিখেন,‘যদিও আমি টিমের সাথে আনন্দ উল্লাসে শেষ পর্যন্ত থাকতে পারিনি। বিশ্বাস করুন, যেটুকু সময় উল্লাস করেছি মনে হয়েছিল এটা স্বপ্ন। আপনাদের  সমর্থনে, আমাদের আত্মবিশ্বাসে আজকের এই দিনটা উদযাপন করতে পেরেছি। আমরা আপনাদের কাছে কৃতজ্ঞ। আশা করি, আগামীতেও আমাদের পাশে থেকে এভাবে সমর্থন দিয়ে যাবেন। আমাদের জন্য সবাই আশীর্বাদ ও দোয়া করবেন। ’

এর আগে ছাদখোলা বাসে উদযাপন করতে গিয়ে বনানী ফ্লাইওভারের নিচ মাথায় চোট পান ঋতু। এ সময় কপালে ধাতব কিছুর আঘাত লাগে তার। পরে কেটে গিয়ে কপাল থেকে রক্ত বের হয়। তাৎক্ষণিকভাবে গাড়ি থামিয়ে বহরের সাথে থাকা অ্যাম্বুলেন্সে করে ঋতুপর্ণাকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) নেয়া হয়। সেখানে কপালে তিনটি সেলাই লাগে তার।  

ঋতুকে নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিলেন তার ভক্তরা। তবে আশার কথা সুস্থ আছেন তিনি। পোস্টে নিজেই ভক্তদের জানিয়েছেন, ‘ভগবানের আশীর্বাদে আমি এখন সুস্থ আছি। তেমন কোন সমস্যা হয়নি আর। ’

সদ্য শেষ হওয়া সাফে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৬-০ গোলে জয়ের ম্যাচে ১টি ও ভুটানকে ৮-০ গোলে হারানোর ম্যাচে একটিসহ টুর্নামেন্টে মোট দুটি গোল করেন ঋতু। যেখানে প্রথম গোলটি তিনি উৎসর্গ করেছিলেন তার প্রয়াত ভাই পার্বণ চাকমাকে। উল্লেখ্য, গত ৩০ জুন রাঙামাটির কাউখালিতে সেচ-পাম্প ঠিক করতে গিয়ে বিদ্যুৎপৃষ্ট হয়ে মারা যায় পার্বণ চাকমা।

news24bd.tv/আমিরুল

এই রকম আরও টপিক