শেষ ম্যাচে হার, কাঁদলেন ফেদেরার ও নাদাল
শেষ ম্যাচে হার, কাঁদলেন ফেদেরার ও নাদাল

সংগৃহীত ছবি

শেষ ম্যাচে হার, কাঁদলেন ফেদেরার ও নাদাল

অনলাইন ডেস্ক

টেনিস থেকে বিদায়ের ঘোষণা আগেই দিয়েছিলেন সুইস কিংবদন্তি রজার ফেদেরার। জানিয়েছিলেন, লেভার কাপ দিয়ে ইতি টানবেন ২৪ বছরের বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারের। এমনটাই হলো। হেরে টেনিস কোর্টে শেষ হয়েছে এক রাজার রাজত্ব।

শেষ ম্যাচে প্রতিদ্বন্দ্বী রাফায়েল নাদালকে সঙ্গে নিয়ে নামবেন কোর্টে, তারপর র‌্যাকেটটা তুলে রাখবেন-এমনটি ফেদেরার আগেই জানিয়েছিলেন। সেই অনুযায়ী শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) লন্ডনের ওটুর কোর্টে নামেন তারা। তবে শেষ ম্যাচে হেরে গেছেন সময়ের এই দুই মহতারকা।  

টিম ইউরোপের হয়ে দ্বৈত জুটি হিসেবে নামেন ফেদেরার ও নাদাল।

তাদের বিপক্ষে ছিলেন টিম ওয়ার্ল্ডের জুটি ফ্রান্সিস তিয়াফো এবং জ্যাক সকের। ম্যাচটি ৪-৬, ৭-৬ (৭/২), ১১-৯ গেমে হেরেছেন ফেদেরার ও নাদাল। তবে এতে টেনিসভক্তদের অতৃপ্তি থাকার কথা নয়।

ম্যাচ শেষে ওটুতে এক নিস্তব্ধতা নেমে আসে। চোখে অশ্রু চলে আসে ফেদেরারের। সেই কান্নায় যোগ দেন এক সময়ের প্রতিদ্বন্দ্বী নাদাল। পেছেনে থাকা জোকোবিচের চোখেও হতাশা। নাদালকে আর কখনো কাঁদতে দেখা যায়নি এমনটা দাবি করছে বিভিন্ন গণমাধ্যম। তবে প্রতিদ্বন্দ্বী ও বন্ধু ফেদেরারের জন্য চোখে পানি তো আসতেই পারে এই স্প্যানিশ তারকার।

কোর্টে দুই তারকার অশ্রু দেখে সেখানে এক স্তব্ধতার সৃষ্টি হয়। ম্যাচ শেষে ফেদেরারের জন্য পাঁচ মিনিট দাঁড়িয়ে সংবর্ধনা দেন সবাই। রজার-রজার ও করতালি দিতে থাকেন দর্শকরা। পরক্ষণে অশ্রু বন্ধ হয় সুইডিশ তারকার।

ফেদেরার বলেন, ‘আমি সুখী, আমি দুঃখিত নই। শেষবার আমার জুতা বেঁধে উপভোগ করেছি। সবকিছুই শেষ ছিল। ’

নিজের শেষ ম্যাচ নিয়ে নিজের অনুভূতির কথা আগেই জানিয়েছিলেন ফেদেরার। ম্যাচের আগে এক টুইট বার্তায় এই সুইডিশ তারকা বলেন, ‘আমি এটি হাজার হাজার বার করেছি কিন্তু এরকম অনুভব হয়নি। আজ রাতে যারা আসছেন তাদের সবাইকে ধন্যবাদ। ’

২০২১ উইম্বলডন কোয়ার্টার ফাইনালে চোট পান ফেদেরার। এরপরে আর কোর্টে নামতে পারেননি তিনি। গত সপ্তাহে অবসরের ঘোষণা দেন এই সুইডিশ তারকা। এরপর থেকেই তার বিদায়ী ম্যাচের অপেক্ষায় ছিলেন সবাই। নীল জার্সিতে কোর্টে নামা ফেদেরারের বিদায়ী মুহূর্তটাও যেন হয়ে ওঠে বেদনার প্রতীক। নীল তো বেদনারই রং! সেই রঙের জার্সি পরেই টেনিস ইতিহাসের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়কে বিদায় জানালেন টিম ইউরোপে তার কিংবদন্তি সতীর্থরা, নাদাল, জোকোভিচ, মারে।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে সমর্থকদের জন্য খুশির খবর দিয়েছেন ৪১ বছর বয়সী কিংবদন্তি। তিনি বলেছেন, ‘এখানেই সবকিছুর শেষ নয়। জীবন জীবনের মতোই এগিয়ে চলবে। আমি সুস্থ আছি, ভালো আছি। একটি বার্তা দিতে চাই, খেলাটির প্রতি আমার ভালোবাসা থাকবে। ভক্তদের জানাতে চাই আবারও দেখা হবে, বিশ্বের অন্য কোথাও, আলাদা কোনো টেনিস-কোর্টে। তবে কবে, কোথায়, কীভাবে হবে, তা নিয়ে এখনো কোনো পরিকল্পনা করিনি। তবে এমন সব জায়গায় গিয়ে খেলতে চাই, যেখানে আগে কখনো খেলেনি, সামনের বছরগুলোয় শুধু সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে যেতে চাই সবাইকে, যারা এত দিন ধরে আমাকে সমর্থন দিয়েছেন। ’

ফেদেরারের শেষ ম্যাচকে টেনিস ইতিহাসেরই অনন্য এক মুহূর্ত মনে করেন নাদাল। তিনি বলেছেন, ‘আমাদের এই খেলাটির ইতিহাসে অনন্য এই মুহূর্তের সঙ্গী হতে পারাটা আমার জন্য বিশেষ সম্মানের। দুজনে একসঙ্গে কত বছর ধরে কত কিছু ভাগ করে নিয়েছি। ফেদেরারের চলে যাওয়া মানে আমার জীবন থেকে একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায়েরও অবসান ঘটা। ’

২৪ বছরের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে দেড় হাজারের বেশি ম্যাচ খেলেছেন টেনিস কোর্টের এই রাজা। জিতেছেন ১০৩টি শিরোপা। আর গ্রান্ড স্ল্যাম জিতেছেন ২০টি।

news24bd.tv/মামুন

এই রকম আরও টপিক