নান্দাইলে পাহারাদারদের বেঁধে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি 
নান্দাইলে পাহারাদারদের বেঁধে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি 

স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি 

নান্দাইলে পাহারাদারদের বেঁধে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি 

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

ময়মনসিংহের নান্দাইলে দুইটি স্বর্ণের দোকান ও একটি ফলের দোকানে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। ডাকাতির আগে ৮ পাহাদার ও এক ব্যবসায়ীকে বেঁধে ফেলে ১৫ সদস্যের ওই ডাকাত দল। ডাকাতি শেষে পালিয়ে যাবার সময় টহল পুলিশ সামনে পড়লে তিনটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় ডাকাত দল। উপজেলার পৌর এলাকার পুরাতন মুরগী মহাল এলাকায় শুক্রবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় দুই জুয়েলারি দোকান ও এক ফল ব্যবসায়ীর অন্তত ২৫ লাখ টাকার বেশি ক্ষতি হয়েছে বলে ভুক্তভোগীরা জানিয়েছেন।

বিসমিল্লাহ জুয়েলার্সের মালিক জানান, দোকানে ১৩ ভরি স্বর্ণ, ৫০ ভরি রৌপ্যসহ নগদ সাড়ে ৪ লাখ টাকার বেশি লুটপাট হয়েছে। এতে প্রায় সতের লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। দোকানে থাকা অধিকাংশ অলঙ্কারই বিভিন্ন ক্রেতাদের।

 

অপরদিকে মুক্তা জুয়েলার্সের মালিক আব্দুল মতিন মীর জানান, ৪ ভরি স্বর্ণ, ৩০ ভরি রৌপ্যসহ কিছু নগদ টাকা নিয়ে গেছে। এতে সব মিলিয়ে প্রায় চার লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, দেশীয় অস্ত্র হাতে অন্তত ১৫ সদস্যের ডাকাত দলের প্রত্যেকে থ্রি-কোয়ার্টার প্যান্ট, সেন্ডুগেঞ্জি ও মাস্কপড়া অবস্থায় ছিলো। শুরুতেই এলাকার ৫ বাজার পাহারাদারসহ ৮ জনকে বেঁধে ফেলে। পরে একে একে মুক্তা জুয়েলার্স, বিসমিল্লাহ জুয়েলার্স ও মাহাদি হাসান ফল ভান্ডরে লুটপাট চালায়। এ সময় মাহাদি ফল ভান্ডারের মালিক আঞ্জু মিয়াকে বেঁধে মারধর করা হয়।

এদিকে ডাকাতদলটি ডাকাতি শেষে চলে যাবার সময় টহল পুলিশের সামনে পড়লে পুলিশকে লক্ষ্য করে অন্তত তিনটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায়।

নান্দাইল মডেল থানার ওসি মো. মিজানুর রহমান বলেন, পুলিশের নিয়মিত টহলদল ওই এলাকায় যেতেই ককটেল ফাটিয়ে চলে যায় ডাকাত দল। এতে কোনো পুলিশ সদস্য আহত হয়নি। ডাকাতদলকে শনাক্তে চেষ্টা চলছে। মামলা প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান তিনি।

news24bd.tv/রিমু