সেই নেপালে অন্য চ্যালেঞ্জের মুখে বাংলাদেশ
সেই নেপালে অন্য চ্যালেঞ্জের মুখে বাংলাদেশ

সংগৃহীত ছবি

সেই নেপালে অন্য চ্যালেঞ্জের মুখে বাংলাদেশ

অনলাইন ডেস্ক

কাঠমান্ডুর দশরথ রঙ্গশালা স্টেডিয়াম এখন বাংলাদেশের কাছে এক ইতিহাসের নাম। নেপালের এই ভেন্যুতেই যে নারী দল গড়েছে ইতিহাস। গত সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) এই মাঠে স্বাগতিক নেপালকে হারিয়ে প্রথমবারের মতো দক্ষিণ এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের ট্রফি সাফের শিরোপা জেতে বাংলাদেশ নারী দল।

ইতিহাস গড়া সেই বিজয়ের রেশ এখনও কাটেনি।

মেয়েরা দেশে ফেরার পর পাচ্ছে একের পর এক সংবর্ধনা। পুরস্কার পাচ্ছেন বিভিন্ন সংস্থা থেকে। উৎসবের আমেজ এখনও রয়েছে তরতাজা। এর মধ্যে সেই নেপালে নতুন চ্যালেঞ্জ নিয়ে মাঠে নেমে পড়েছে বাংলাদেশ পুরুষ ফুটবল দল।

ফিফা প্রীতি ম্যাচ খেলতে শুক্রবার নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে পা রাখে জামাল ভুঁইয়ার দল। মেঘাচ্ছন্ন আবহাওয়া এবং থেমে থেমে বৃষ্টি হওয়ার কারণে কাঠমান্ডুর আর্মি গ্রাউন্ডে বেশিক্ষণ প্রস্তুতি নিতে পারেনি ফুটবলাররা। তবে ঠিকমতো সেরেছে জিম ও সুইমিং।

আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর সেই দশরথ রঙ্গশালাতেই নেপালের আতিথেয়তা নিবে বাংলাদেশ। মেয়েরা নেপালকে পাত্তা না দিলেও, ছেলেদের সামনে অপেক্ষা করছে বড় চ্যালেঞ্জ। ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে নেপালের অবস্থান যেখানে ১৭৬তম, বাংলাদেশ সেখানে রয়েছে ১৯২তম স্থানে। এ ছাড়াও নেপাল খেলবে ঘরের মাঠে। স্বাগতিক দর্শকদের সামনে হাভিয়ের কাবরেরার দলকে তাই বড় চ্যালেঞ্জের মুখেই পড়তে হবে।

তবে ইতিবাচক দিক, কম্বোডিয়া থেকে জয় নিয়েই নেপাল গেছে বাংলাদেশ দল। ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে কম্বোডিয়ার অবস্থান নেপাল থেকে দুই ধাপ এগিয়ে। এ ছাড়াও আগের ২৩ মুখোমুখি দেখায় জয়ের পাল্লা ভারী বাংলাদেশেরই। নেপালের ৭ জয়ের বিপরীতে ১৩ জয় জামালদের নামের পাশে।

দুই দলের সর্বশেষ সাক্ষাৎ হয়েছিল গত বছর অক্টোবরে। সেই সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচে। ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়েছিল।

news24bd.tv/সাব্বির