স্বচ্ছ নির্বাচন নিয়ে বিএনপি শঙ্কিত : প্রধানমন্ত্রী
স্বচ্ছ নির্বাচন নিয়ে বিএনপি শঙ্কিত : প্রধানমন্ত্রী

সংগৃহীত ছবি

স্বচ্ছ নির্বাচন নিয়ে বিএনপি শঙ্কিত : প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক

নির্বাচন স্বচ্ছ হবে বিধায় বিএনপি শঙ্কিত বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৭তম অধিবেশনে যোগদান উপলক্ষে শনিবার স্থানীয় সময় সকালে নিউইয়র্কে জাতিসংঘে বাংলাদেশ স্থায়ী মিশনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমার মনে হয় স্বচ্ছ নির্বাচন হবে বলেই তারা শঙ্কিত। কারণ ভোট চুরি করে ক্ষমতায় যাওয়া আর ঐ যে এক কোটি ২৩ লাখ ভুয়া ভোটার লিস্টে রেখে ভোট করা- এই সুযোগ পাচ্ছে না বলেই বোধ হয় নির্বাচন নিয়ে তাদের এতো শঙ্কা।

নইলে শঙ্কা করার কিছু নেই।

জিততে পারবে না বলেই বিএনপি ২০১৪ সালের নির্বাচনে আসেনি মন্তব্য করে শেখ হাসিনা বলেন, ২০১৪ নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করেনি সেটা তো তার দলের সিদ্ধান্ত। তারা করে না এজন্য, কারণ তারা জানে যে একটা সঠিক পদ্ধতিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হলে তাদের ক্ষমতায় আসার সম্ভাবনা থাকে না। তারা তো হত্যা-কু, ষড়যন্ত্রের মধ্য দিয়ে ক্ষমতায় এসে অভ্যস্ত; এটা হলো বাস্তব।

আওয়ামী লীগই মানুষের ভোটের অধিকার নিশ্চিত করেছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী। তিন বলেন, মানুষের ভোটের যে অধিকার সে অধিকারটা যেন নিশ্চিত হয় তার ব্যবস্থা আমরাই করেছি।

জনগণের ভোট চুরি করে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় কোনদিনই আসেনি। আওয়ামী লীগ যতবারই ক্ষমতায় এসেছে জনগণের ভোটের মাধ্যমেই এসেছে বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহার প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, ইভিএম একটা আধুনিক পদ্ধতি; পৃথিবীর বহু দেশে ব্যবহার হয়। আমরাও দেখেছি যেখানে যেখানে ব্যবহার হয়েছে সেখানে খুব ভালো ফলাফল পাওয়া গেছে। ইভিএমে মানুষ তার ভোটটা স্বাধীনভাবে দিতে পেরেছে। তারপরও এর বিরুদ্ধে অনেকে আছে এটাও ঠিক; যাইহোক আমার কথা হচ্ছে আজকে নির্বাচন যতটুকু স্বচ্ছতা পেয়েছে এটা কিন্তু অতীতে ছিল না।

নিউইয়র্ক সফর নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, বন্ধুত্ব; বাংলাদেশের জন্য বন্ধুত্ব নিয়ে ফিরছি। বাংলাদেশ যে উন্নয়নের বিস্ময় এটাই সবাই বলতে চেষ্টা করেছেন। সবচেয়ে বড় কথা হলো আমরা শান্তি চাই; যুদ্ধ চাই না, সংঘাত চাই না। এই বার্তাটা আমি সকলের কাছে পৌঁছে দিতে পেরেছি সেটাই হচ্ছে আমার মনে হয় সবচেয়ে বড় কথা এবং সকলেই বাংলাদেশের প্রশংসা করেছে এবং আমাদের ভূমিকার প্রশংসা করেছেন।

news24bd.tv/হারুন