চাপের সময় ব্যাটিং উপভোগ করেন আফিফ
চাপের সময় ব্যাটিং উপভোগ করেন আফিফ

সংগৃহীত ছবি

চাপের সময় ব্যাটিং উপভোগ করেন আফিফ

অনলাইন ডেস্ক

সাম্প্রতিক সময়ে টি২০-তে বাংলাদেশ দলে সবচেয়ে ধারাবাহিক ব্যাটারদের মধ্যে অন্যতম আফিফ হোসেন। গত ম্যাচেও ধুঁকতে থাকা দলকে টেনে তুলেছেন। দলকে নিয়ে গেছেন সম্মানজনক অবস্থায়। তার ক্যারিয়ারসেরা ৭৭ রানে ভর করেই স্বাগতিক সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ১৫৯ রানের লক্ষ্য দেয় বাংলাদেশ।

৭ রানে বাংলাদেশের জয়ের দিনে ম্যাচসেরা হয়েছেন আফিফ।

বিশ্বকাপের প্রস্তুতি সূচক ম্যাচে ৭৭ রানেই টপ অর্ডারের ৫ ব্যাটারকে হারিয়ে চাপে পড়ে বাংলাদেশ। তবে সেই চাপে ভেঙে পড়েননি আফিফ। অধিনায়ক নুরুল হাসানকে নিয়ে ম্যাচের শেষ পর্যন্ত লড়ে গেছেন।

টপ অর্ডারের এমন হতশ্রী পারফরমেন্সের দিনে আশার আলো জ্বেলেছেন তিনি। তবে টপ অর্ডার আলো কাড়তে না পারলেও সমস্যার কিছু দেখছেন না তিনি।

ম্যাচ শেষে বিসিবির এক ভিডিও-বার্তায় তিনি বলেন, ‘শুরুতে উইকেট একটু কঠিন ছিল। বল গ্রিপ হচ্ছিল। টপ অর্ডার ভালো করতে পারেনি, পরের ম্যাচে ইনশাআল্লাহ করবে। এটা সমস্যা নয়। আমি আর সোহান ভাই ব্যাট করার সময় আস্তে আস্তে উইকেট ভালো হচ্ছিলো দেখে আমরা আরও ভালো ব্যাটিং করতে পেরেছি। ’

এদিন ৫৫ বলে ১৪০ স্ট্রাইকরেটে ৩ ছয় ও ৭ চারে ৭৭ রান আসে আফিফের ব্যাট থেকে। ম্যাচসেরা হয়েছেন। ম্যাচশেষে জানিয়েছেন চাপের মুহূর্তগুলো বেশ উপভোগই করেন তিনি। আফিফ বলেন, ‘সবসময় চাপের মুখে ব্যাটিং করতে ভালো লাগে। আমি শেষ পর্যন্ত ব্যাটিং করতে চেয়েছিলাম, সফল হওয়ায় ভালো লাগছে। ’

এর আগে মুশফিকুর রহিমের অবসর ও মাহমুদউল্লার বাদ পড়ায় ব্যাটিং অর্ডারে প্রমোশন পেয়ে চার নম্বরে ব্যাট করতে নেমেছেন আফিফ। জানিয়ে রেখেছেন এই পজিশনের জন্য প্রস্তুত আছেন তিনি। তবে দলে সিনিয়রদের মধ্যে কেউ না থাকলেও ম্যাচে বাড়তি চাপ অনুভব করছেন না তিনি।

তিনি বলেন, ‘কয়েকজন সিনিয়র খেলোয়াড় নেই। তবে তারা না থাকলেও আমাদের ওপর বাড়তি চাপ নেই। আমাদের সবসময় সেরা একাদশই খেলাতে হবে। আশা করি পরের ম্যাচেও আমি রান করতে পারবো। ’

news24bd.tv/আমিরুল