গৃহবধূকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ, যুবকের যাবজ্জীবন
গৃহবধূকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ, যুবকের যাবজ্জীবন

প্রতীকী ছবি

গৃহবধূকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ, যুবকের যাবজ্জীবন

অনলাইন ডেস্ক

নড়াইলে গৃহবধূকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ধর্ষণ ও নির্যাতন মামলায় বিল্লাল হোসেন নামে এক যুবককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও পঞ্চাশ জরিমানা করেছেন আদালত। এছাড়াও আরও পাঁচ বছরের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও দশ হাজার টাকা জরিমানাসহ অনাদায়ে ছয় মাসের কারাদণ্ড দেন আদালত। অভিযোগ প্রমাণ না হওয়ায় অন্য দুই আসামিকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে।

সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নড়াইলের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক সানা মো. মাহরুফ হোসাইন ভিন্ন ধারায় এ দণ্ডাদেশ দেন।

 

দণ্ডপ্রাপ্ত বিল্লাল হোসেন লোহাগড়া উপজেলার চাঁচই গ্রামের মৃত নাজির শেখের ছেলে।

মামলার বিবরণে জানা যায়, বিল্লালের প্রতিবেশী এক গৃহবধূর স্বামী চাকরির সুবাদে ঢাকায় থাকতেন। এ সুযোগে ২০২০ সালের ৯ আগস্ট রাতে ওই গৃহবধূর ঘরে ঢুকে নানা প্রকার ভয়ভীতি দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করেন। এরপর থেকে প্রাণনাশের হুমকিসহ ওই গৃহবধূকে নানাভাবে জিম্মি করে দিনের পর দিন ইচ্ছার বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময় তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করে।

এক পর্যায়ে নির্যাতিতা অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে বিল্লাল তাকে গর্ভপাত করতে বাধ্য করেন।

পরে নির্যাতিতা ওই বছরের ২৬ নভেম্বর লোহাগড়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে বিল্লালের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। মামলাটি তদন্ত করে বাদীর অভিযোগের সত্যতা পেয়ে ২০২১ সালের ৩১ মার্চ বিল্লাল ছাড়াও তার ভাই জাহিদ ও ভাবী ফিরোজার বিরুদ্ধে পুলিশ আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয়।

মামলার বিচারিক প্রক্রিয়া চলাকালে এ মামলায় মোট সাতজন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে সোমবার দণ্ডবিধির একাধিক ধারায় আদালত তাকে নানা মেয়াদে দণ্ডিত করেন।

news24bd.tv/কামরুল