দেশ ত্যাগ রুখতে সীমান্ত বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়নি রাশিয়া
দেশ ত্যাগ রুখতে সীমান্ত বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়নি রাশিয়া

সংগৃহীত ছবি

দেশ ত্যাগ রুখতে সীমান্ত বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়নি রাশিয়া

অনলাইন ডেস্ক

সামরিক বাহিনীতে যোগদানের বয়স রয়েছে এমন পুরুষদের দেশ ত্যাগ বন্ধ করতে রাশিয়ার সীমানা বন্ধ করা হবে কিনা সে বিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছে ক্রেমলিন।

সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সীমান্ত বন্ধ হওয়ার সম্ভাবনা সম্পর্কে জানতে চাইলে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেন, আমি এ বিষয়ে কিছুই জানি না। এই মুহূর্তে এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

সাত মাস ধরে চলা যুদ্ধে গত সপ্তাহে ইউক্রেন সেনাবাহিনী রাশিয়ার সেনাদের কাছে বেহাত হওয়া ভূ-খণ্ড পুনর্দখল  করে।

এ ঘটনায় প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন নতুন করে কয়েক লাখ সেনা মোতায়েনের আদেশ দেন। তখন থেকে রাশিয়া সীমান্ত বন্ধ করা হতে পারে বলে ধারণা করা হয়। এ দিকে ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ বন্ধে দেশটিতে বিক্ষোভ করতে দেখা যায়। সেই বিক্ষোভ দমনে পাল্টা ব্যবস্থা নেয় পুতিন প্রশাসন।

এরই মধ্যে আলোচনা শুরু হয় রাশিয়ান পুরুষদের দেশ ত্যাগ রুখতে সীমানা বন্ধ করা হতে পারে। ইতিমধ্যে বিমানের টিকিট পাচ্ছেন না দেশটির নাগরিকরা। বিক্রি হয়ে গেছে সব টিকিটই। এমনকি দেশটির সীমান্ত চেকপয়েন্টগুলিতে গাড়ির ব্যাপক সারি দেখা গেছে। বিশেষ করে জর্জিয়া সীমান্তে এমন চিত্র দেখা গেছে। এতে ২৪ ঘণ্টার যানজট সৃষ্টি হয় বলে আল-জাজিরার এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।  

জর্জিয়ার সীমান্ত পারাপারের অপেক্ষা থাকা ডেভিড নামের এক রাশিয়ান নাগরিক নিউজ এজেন্সি এএফপিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন, ‘আমার পরিচিত সবাই আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন। যে শাসন ব্যবস্থা মানুষ হত্যা করে সেই শাসন থেকে আমরা পালাচ্ছি।

কাজাখিস্তান এবং মঙ্গোলিয়ার সীমানা ক্রসিংয়ের রাস্তায় গাড়ির দীর্ঘ লাইনও দেখা গেছে।

দেশ ত্যাগ রুখতে রাশিয়ার পার্লামেন্টের উচ্চকক্ষে রুশ-অধিভুক্ত ক্রিমিয়ার প্রতিনিধিত্বকারী সিনিয়র আইন প্রণেতা সের্গেই সেকভ আরআইএ নভোস্তি নিউজ এজেন্সিকে বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে যাদের বাধ্যতামূলকভাবে রাশিয়ান সেনা বাহিনীতে যোগ দেওয়ার বয়স রয়েছে তাদের প্রত্যেকে বিদেশ ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দেওয়া উচিত।

মেডুজা এবং নোভায়া গাজেটা ইউরোপ নামের দুটি নিউজ সাইটে নাম প্রকাশ না করার শর্তে 
কয়েকজন কর্মকর্তাদের উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে, রাশিয়ান পুরুষদের দেশ ত্যাগ নিষিদ্ধ করার পরিকল্পনা করছে ক্রেমলিন।

news24bd.tv/হারুন