‘দেশের ইতিবাচক ভাবমূর্তি বহির্বিশ্বে প্রচার করতে হবে’

‘দেশের ইতিবাচক ভাবমূর্তি বহির্বিশ্বে প্রচার করতে হবে’

ফজলে রাব্বী সৌরভ

কোভিডের চ্যালেঞ্জ কাটিয়ে পর্যটন শিল্পকে এগিয়ে নিতে কাজ করছে সরকার। একথা জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী। বিমানে সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধির পাশাপাশি এই শিল্পের প্রসার ঘটাতে প্রত্যেক জেলায় একজন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে দায়িত্ব দেওয়ার কথাও ভাবা হচ্ছে।

মঙ্গলবার আগারগাঁওয়ে বিশ্ব পর্যটন দিবসের অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

বিশ্ব পর্যটন দিবস উপলক্ষে আগারগাঁওয়ে আয়োজন করা হয় বর্ণাঢ্য র‍্যালি ও আলোচনা সভার। এ বছরের প্রতিপাদ্য-পর্যটনে নতুন ভাবনা৷

আলোচনায়, ৭৫ পরবর্তী কোনো সরকার দেশের পর্যটনের উন্নয়নে কাজ করেননি বলে মন্তব্য করেন বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি উবায়দুল মুক্তাদির চৌধুরী।

বেসরকারিভাবে গড়ে ওঠা পর্যটন কেন্দ্রগুলো করোনাকালীন সময়ে প্রণোদনা পায়নি জানিয়ে এ খাতে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতার দাবি জানান খাত সংশ্লিষ্টরা৷

পর্যটন শিল্পের প্রসার ঘটাতে প্রতিটি জেলায় একজন  অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে দায়িত্ব দেওয়ার পরিকল্পনার কথাও জানালেন পর্যটন প্রতিমন্ত্রী।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমাদের পর্যটনে অপার সম্ভাবনা ও সুযোগ রয়েছে।

আমাদের ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি, মূল্যবোধ ও প্রকৃতিসহ পর্যটনের সকল উপাদান ও সুযোগ-সুবিধা সঠিকভাবে মানুষের কাছে তুলে ধরতে হবে। ব্র্যান্ডিং করতে হবে। দেশের ইতিবাচক ভাবমূর্তি বহির্বিশ্বে প্রচার করতে হবে। তাহলেই বিদেশি পর্যটকগণ আমাদের পর্যটন গন্তব্যগুলো নিয়ে আকর্ষণ বোধ করবেন।

মাহবুব আলী বলেন, কোভিড-১৯ মহামারীর অভিজ্ঞতা বিশ্বের পর্যটন শিল্পকে নিয়ে নতুন করে ভাবার সুযোগ করে দিয়েছে। টেকসই ও ধারাবাহিক পর্যটন উন্নয়নে সৃজনশীলতা, উদ্ভাবন ও পণ্যের বহুমাত্রিকরণের কোন বিকল্প নেই। দেশের পর্যটন শিল্পের সম্ভাবনার সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে ও ভবিষ্যতের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় কার্যকরী কৌশল প্রণয়ন করা হচ্ছে। জেলায় পর্যটনের উন্নয়ন কাজ সমন্বয় করার জন্য একজন এডিসিকে পর্যটনের দায়িত্ব দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়া হবে।

অনুষ্ঠানে, বাংলাদেশ ট্যুরিস্ট পুলিশের পক্ষ থেকে পর্যটকদের নিরাপত্তা জোরদারের বিষয়েও আলোচনা করা হয়।