গ্রেপ্তারি পরোয়ানার পর জামিন পেলেন ইমরান খান
গ্রেপ্তারি পরোয়ানার পর জামিন পেলেন ইমরান খান

সংগৃহীত ছবি

গ্রেপ্তারি পরোয়ানার পর জামিন পেলেন ইমরান খান

অনলাইন ডেস্ক

গত মাসে একটি জনসভায় পুলিশ কর্মকর্তা এবং এক মহিলা বিচারকের বিরুদ্ধে মন্তব্য করায় পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেয় ইসলামাবাদ হাইকোর্ট। তবে তিনি তা অমান্য করলে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে আদালত। গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির একদিন না পেরোতেই তার জামিন আবেদন মঞ্জুর করেছে উচ্চ-আদালত।

আগামী ৭ অক্টোবর ইমরান খানকে আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছে, ইসলামাবাদ হাইকোর্ট (আইএইচসি)।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম ডন রোববার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

জানা গেছে, গেল আগস্টে ইমরান খানের বিরুদ্ধে একটি আদালত অবমাননার মামলা করা হয়েছিল। মূলত দেশটির অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ জেবা চৌধুরীর বিষয়ে মন্তব্য করার পর ওই মামলাটি করা হয়।

এর আগে, এই মামলায় ইসলামাবাদ হাইকোর্টের শুনানিতে ইমরান খান ক্ষমা চেয়ে বলেছিলেন, আদালত চাইলে তিনি সেই নারী বিচারকের কাছে গিয়েও ক্ষমা চাইবেন।

তিনি আর কখনো আদালত বা বিচার বিভাগের অনুভূতিতে আঘাত করবেন না।

উল্লেখ্য, সহযোগী শাহবাজ গিলকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় গত ২০ আগস্টের সমাবেশে নারী বিচারক জেবা চৌধুরী ও ইসলামাবাদের সিনিয়র পুলিশ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ‘পদক্ষেপ’ নেয়ার হুমকি দিয়েছিলেন ইমরান খান। পাকিস্তানের আইন অনুসারে, আদালত অবমাননার মামলায় দোষী সাব্যস্ত হলে অন্তত পাঁচ বছর সরকারি দায়িত্ব পালন করার ক্ষেত্রে অযোগ্য বিবেচিত হতেন ইমরান খান।

প্রধানমন্ত্রীত্ব হারানোর পর ইমরানের জনপ্রিয়তা সেভাবে ভাঁটা পড়েনি। আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশেষজ্ঞদের দাবি, সেই কারণেই তাকে গ্রেপ্তার করতে চাইছেন শাহবাজ শরিফ।

news24bd.tv/আমিরুল