পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীকে সমর্থন দিয়েছেন ইরানের আইনপ্রণেতারা
পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীকে সমর্থন দিয়েছেন ইরানের আইনপ্রণেতারা

সংগৃহীত ছবি

পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীকে সমর্থন দিয়েছেন ইরানের আইনপ্রণেতারা

অনলাইন ডেস্ক

হিজাব না পরায় পুলিশি হেফাজতে ২২ বছর বয়সী মাহসা আমিনীর মৃত্যুকে ঘিরে ইরানসহ বিশ্বজুড়েই চলছে বিক্ষোভ। সেই বিক্ষোভে অংশ নিচ্ছেন ইরানের সর্বস্তরের মানুষ। আর সে জন্য গ্রেফতারের শিকারও হতে হচ্ছে বিক্ষোভকারীদের। ফলে নিন্দার মুখোমুখি হতে হচ্ছে ইরানের পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর।

তবে এসবের বিপরীতে পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীকে সমর্থন দিয়েছেন ইরানের আইনপ্রণেতারা।

রোববার মজলিসে (সংসদ) ২৩৩ জন সংসদ সদস্যের দেওয়া বিবৃতি পাঠ করা হয়। যেখানে এ ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধে পুলিশকে কৌশল অবলম্বন করার কথা বলেন তারা। এছাড়াও দেশব্যাপী অস্থিরতা নিয়ন্ত্রণে এবং নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠায় ধৈর্যের জন্য পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর প্রশংসা করা হয়।

বিবৃতিতে জোর দেওয়া হয়, মজলিস তার সমস্ত তত্ত্বাবধানের সরঞ্জাম ব্যবহার করে সারা দেশে সাম্প্রতিক ঘটনাগুলির বিভিন্ন দিক পরীক্ষা করবে। ঘটনার পিছনের কারণগুলি খুঁজে বের করবে, সমস্যাগুলি মোকাবেলার জন্য বর্তমান কৌশলগুলি তৈরি করবে এবং সমস্ত ঘটনাকে স্বচ্ছ করে তুলবে।

এছাড়াও সাম্প্রতিক ধ্বংসাত্মক পদক্ষেপ এবং নাশকতার তীব্র নিন্দা করেন সংসদ সদস্যরা। আইন প্রণেতারা বিক্ষোভকারীদের ভাঙচুর থেকে রক্ষা পাওয়ার প্রয়োজনীয়তার উপর জোর দেন। সাম্প্রতিক অশান্তির সময় নিহত নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন আইনপ্রণেতারা। এছাড়াও পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর বিরুদ্ধে আগ্রাসী পদক্ষেপ নেওয়া গুণ্ডাদের কঠোর শাস্তির আহ্বান জানান সংসদ সদস্যরা।

news24bd.tv/আমিরুল