বিশ্বকাপ আয়োজনে ইউক্রেনকে সঙ্গে রাখার ঘোষণা স্পেন-পর্তুগালের
বিশ্বকাপ আয়োজনে ইউক্রেনকে সঙ্গে রাখার ঘোষণা স্পেন-পর্তুগালের

সংগৃহীত ছবি

বিশ্বকাপ আয়োজনে ইউক্রেনকে সঙ্গে রাখার ঘোষণা স্পেন-পর্তুগালের

অনলাইন ডেস্ক

এখনও চূড়ান্ত হয়নি কারা পাবে ২০৩০ ফিফা বিশ্বকাপ আয়োজনের দায়িত্ব। তবে আয়োজক হওয়ার দৌড়ে সবচেয়ে এগিয়ে আছে স্পেন এবং পর্তুগাল। ইউরোপিয়ান ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা উয়েফা সভাপতি আলেকসান্দার সেফেরিনই বলেছিলেন সে কথা। তার এ কথা যদি সত্যি হয়, তবে শুধু স্পেন-পর্তুগাল নয় ৩০’ বিশ্বকাপে ম্যাচ হবে ইউক্রেনেও।

সোমবার ব্রিটিশ দৈনিক ‘দ্য টাইমস’ তাদের এক প্রতিবেদনে জানায়, যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউক্রেন ২০৩০ ফুটবল বিশ্বকাপের একটি ম্যাচ আয়োজন করতে চায়। তাতে সায় ছিল স্পেন-পর্তুগালেরও। আজ বুধবার আনুষ্ঠানিকভাবে দেশ দুটির ফেডারেশনও জানিয়ে দিলো, বিশ্বকাপ আয়োজক হতে ইউক্রেনকে সঙ্গে রেখেই ফিফার কাছে নতুন প্রস্তাব জমা দেবে তারা।

আজ উয়েফার সুইস হেডকোয়ার্টারে ইউরোপিয়ান ফুটবলের গভর্নিং বডির বৈঠক শেষে নতুন অংশীদারিত্বের কথা নিশ্চিত করা হয়।

স্প্যানিশ ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (আরএফইএফ) প্রেসিডেন্ট লুইস রুবিয়ালেস বলেন, ‘এটা এখন আর আইবেরিয়ান বিড (স্পেন-পর্তুগালের প্রস্তাব) নয়। আজ আমরা নতুন একটি পথে পা বাড়ালাম। ’

পর্তুগাল ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (এফপিএফ) প্রেসিডেন্ট ফার্নান্দো গোমেজ বলেছেন, ‘ইউক্রেনকে আমাদের সঙ্গে বিডিংয়ে নেওয়া সম্মানের ব্যাপার। দুই ফেডারেশনই (স্পেন-পর্তুগাল) বিশয়তি উয়েফাকে জানিয়েছে এবং তারাও সবুজ সংকেত দিয়েছে। ফুটবল ফুটবলের চেয়েও বড়। ’

বিশ্বকাপ আয়োজনে কেন ইউক্রেনকে সঙ্গে নেওয়া হচ্ছে তাও এদিন পরিষ্কার করে জানানো হয়েছে। এফপিএফ বলেছে, ‘যুদ্ধ শেষ হয়ে গেল ইউক্রেন আমাদের পরিকল্পনার বাইরে চলে যাবে না। আমাদের তাদের আশা জোগাতে হবে। ইউক্রেনীয় জনগণ যে দৃঢ়তা এবং স্থিতিস্থাপকতার উদাহরণ স্থাপন করেছে তা অনুপ্রেরণাদায়ক। এই প্রস্তাবের লক্ষ্য ফুটবল শক্তির মাধ্যমে একটি একটি দেশের পুনর্গঠনে সহায়তা করা। ’

২০৩০ বিশ্বকাপ আয়োজক হতে স্পেন-পর্তুগাল-ইউক্রেনকে লড়তে হবে দক্ষিণ আমেরিকার চার দেশ আর্জেন্টিনা-উরুগুয়ে-চিলি-প্যারাগুয়ের বিরুদ্ধে। একসঙ্গে বিশ্বকাপ আয়োজনে বিডিং করেছে মিসর, গ্রীস এবং সৌদি আরব। ঠিক কারা বিশ্বকাপের শতবর্ষী টুর্নামেন্ট আয়োজনের গুরুভার পাবে তা জানা যাবে আগামী বছর।

news24bd.tv/সাব্বির