হ্যালান্ডে উড়েই চলছে সিটি, ড্র’য়ে হতাশ তারকাঠাসা পিএসজি
হ্যালান্ডে উড়েই চলছে সিটি, ড্র’য়ে হতাশ তারকাঠাসা পিএসজি

সংগৃহীত ছবি

হ্যালান্ডে উড়েই চলছে সিটি, ড্র’য়ে হতাশ তারকাঠাসা পিএসজি

অনলাইন ডেস্ক

আর্লিং হ্যালান্ড শো চলছেই। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এফসি কোপেনহ্যাগেনের বিপক্ষে হ্যালান্ডের জোড়া গোলে ৫-০ গোলের বড় জয় পেয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। বিপরীতে হতাশ করেছে তারকা ঠাসা পিএসজি। লিওনেল মেসির গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর আর কোনো গোল করতে পারেনি ফরাসি জায়ান্টরা।

বিপরীতে এক গোল হজম করায় বেনফিকার বিপক্ষে ড্র’নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে ক্রিস্টোফার গালতিয়েরের দলের।

প্রিমিয়ার লিগ কিংবা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সিটির জয়ের নায়ক হ্যালান্ডই। সিটির মাঠ ইতিহাদে এ দিন দলকে লিড এনে দিতে হ্যালান্ড সময় নিয়েছেন ৭ মিনিট। এরপর আক্রমণে গিয়েও গোল করতে পারছিল না সিটির আর কোনো ফুটবলার।

তবে সিটির জয় দেখতে আসা সমর্থকদের খুব বেশিক্ষণ অপেক্ষায় রাখেননি হ্যালান্ড। ৩২ মিনিটে জোড়া গোল আদায় করে নেন তিনি। এরপর একের পর এক আক্রমণে দিশেহারা করে ফেলে কোপেনহ্যাগেনকে। সেই আক্রমণ সামলাতে গিয়ে গড়বড় পাকিয়ে ফেলেন ডেভিট খোচোলভা। নিজেই নিজেদের জালে বল পাঠালে ৩-০ গোলের লিড নিয়ে বিরতিতে যায় সিটি।

দ্বিতীয়ার্ধেও আক্রমণেও ধারা বজায় রেখেছিল সিটি। সেই আক্রমণে দিশেহারা কোপেনহ্যাগেন ফের ভুল করে। এবার পেনাল্টিতে সেই ভুলের মাশুল দেয় তারা। ম্যাচের ৫৫ মিনিটে দলকে এগিয়ে নেন রিয়াদ মাহরেজ। এরপর ক্রমাগত আক্রমণে গিয়েও গোল আসছিল না সিটির। তার আগে দ্বিতীয়ার্ধে নেমেই হ্যালান্ডকে মাঠ থেকে উঠিয়ে নেয় পেপ গার্দিওলা। ফলে আক্রমণেও কিছুটা গতি কমে। যার সুবিধা পায় কোপেনহ্যাগেন। তবে ৭৬ মিনিটে আর আটকে রাখা যায়নি সিটিকে। মাহরেজের বাড়ানো বলে দারুণ গোলে দলকে ৫ম গোল উপহার দেন আলভারেজ। তাতে ৫-০ গোলের বড় জয় নিশ্চিত হয় সিটির।

গ্রুপ জি-এর অপর ম্যাচে সেভিয়াকে ৪-১ গোলে বিধ্বস্ত করেছে বরুশিয়া ডর্টমুন্ড। বরুশিয়ার হয়ে গোল পেয়েছেন রাফায়েল গুয়েরেইরো, জুড বেলিংহাম, করিম আদেয়েমি ও জুলিয়ান ব্রান্ডট।

গ্রুপ এইচ’ য়ে বেনফিকার মাঠে খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি পিএসজি। শক্তিশালী পিএসজির আক্রমণ বেশ ভালোভাবেই সামাল দিয়েছে বেনফিকা। বিপরীতে পাল্টা আক্রমণে গিয়ে কাঁপন ধরিয়েছে পিএসজির রক্ষণে। ম্যাচের শুরুতেই শক্তিশালী আক্রমণভাগ নিয়ে মাঠে নামে গালতিয়েরের দল। তবে শুরু থেকেই খাপছাড়া মনে হয়েছে তাদের। দলের হয়ে একমাত্র গোলটি করেন লিওনেল মেসি।

ম্যাচের ২২ মিনিটের সময় বন্ধু নেইমারের বাড়ানো বলে দারুণ গোলে দলকে এগিয়ে নেন মেসি। তবে এরপরই নড়েচড়ে বসে বেনফিকা। পিএসজিকে আর গোল করতে দেবে না নিজেদের মাঠে তারই যেন পণ করেছিল দলটি। ফলে রক্ষণ সামলাতে জুর দেয় বেনফিকা। কাজও হয় তাতে। উল্টো ৪১ মিনিটে পাল্টা আক্রমণে গিয়ে গোল শোধ করে বসে বেনফিকা। স্বস্তিতে সমতায় থেকে বিরতিতে যায় বেনফিকা।

অস্বস্তি নিয়ে দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নামে তারাকাঠাসা পিএসজি। গোলের জন্য মরিয়া হয়ে চেষ্টা চালিয়ে গেলেও বেনফিকার কঠিন দুর্গ ভেদ করা যায়নি। বেনফিকাও আর গোল না পেলে ১-১ গোলের ড্র’য়ে নিষ্পত্তি হয় ম্যাচের ভাগ্য।

এ গ্রুপের অপর ম্যাচে মাক্কাবি হাইফার বিপক্ষে ৩-১ গোলে জয় পেয়েছে জুভেন্টাস।

news24bd.tv/আমিরুল