জলবায়ু পরিবর্তন: রেকর্ড বৃষ্টিপাত দেখল সিডনি
জলবায়ু পরিবর্তন: রেকর্ড বৃষ্টিপাত দেখল সিডনি

সংগৃহীত ছবি

জলবায়ু পরিবর্তন: রেকর্ড বৃষ্টিপাত দেখল সিডনি

অনলাইন ডেস্ক

জলবায়ু পরিবর্তনে বৈশ্বিক প্রেক্ষাপটের ব্যাপক পরিবর্তন হচ্ছে। একই সময়ে পৃথিবীর এক কোণে তাপদাহ ও খরা, অনপ্রান্তে মুষলধারে বৃষ্টি এবং তীব্র শীত পরিলক্ষিত হচ্ছে। ঠিক এমনটাই দেখা গেছে অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে।

রেকর্ড তাপদাহে যখন পুড়ছিল ইউরোপের দেশগুলো ঠিক তখনই রেকর্ড আর্দ্রতম বছর দেখেছে অস্ট্রেলিয়ার অঙ্গরাজ্য নিউ সাউথ ওয়েলসের রাজধানী সিডনি।

একই সময়ে অঙ্গরাজ্যটির বিভিন্ন শহরে ব্যাপক বৃষ্টিপাত দেখা গেছে ও বন্যার সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

সবশেষ ১৯৫০ সালে সিডনিতে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ রেকর্ড করা হয় ২ হাজার ১৯৪ মি.মি.। তবে বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ২ হাজার ১৯৯ দশমিক ৮ মি.মি. বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়। আর এতেই ৭২ বছরের রেকর্ড ভেঙে যায়।

সিডনির আবহাওয়া অফিসের তথ্য মতে, বৃহস্পতিবার বেলা ১১টা থেকে টানা ৯০ মিনিট বৃষ্টিপাত হয়। এ সময়ে বৃষ্টিপাত হয়েছে ২৭ দশমিক ২ মি.মি.।

১৮৫৮ সাল থেকে বৃষ্টিপাতের রেকর্ড রাখছে সিডনির আবহাওয়া অফিস।

বর্তমানে সিডনির পূর্বাঞ্চলে ভারী বৃষ্টিপাত হচ্ছে। আজ বিকেলের পর থেকে এর পরিমাণ কমে যাবে। তবে সামনের সপ্তাহে শহরটিতে বজ্রসহ ভারী বৃষ্টিপাতের আশঙ্কার কথা জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

গত জুলাইয়ে বছরের সবেচেয়ে আর্দ্রতম মাস দেখেছে সিডনিবাসী। তবে এর দুই সপ্তাহ পর থেকেই ভারী বৃষ্টিপাত শুরু হয়। ওই সময়ে ৪০৪ মি.মি. বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়। আর সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাতের রেকর্ডধারী ১৯৫০ সালের এ সময়ে হয়েছিল ৩৩৬ দশমিক ১ মি.মি। এ ছাড়া গত মার্চে শহরটিতে ৫২১ দশমিক ৪ মি.মি. বৃষ্টিপাত হয়েছে; যা ১৯৪২ সালের রেকর্ড ভেঙে ফেলে।

চলমান এই বৃষ্টিতে শহরটির নদীগুলোর পানি বৃদ্ধি পাবে। এমনকি বন্যাও হতে পারে।  

নিউ সাউথ ওয়েলসের স্টেট ইমার্জেন্সি (এসইএস) সার্ভিসের সিন কিয়ার্নস বলেন, ‘ভারী বৃষ্টিপাতের জন্য ফোবস, ওয়ারেন, ডুব্বোসহ ৪০টি শহরে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। আমরা আবহাওয়ার পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছি। ’

বন্যা পুনরুদ্ধার মন্ত্রী স্টেফ কুক বলেছেন, ‘রাজ্য জুড়ে বন্যার হুমকির জন্য মাঠে ৫০০ এর বেশি এসইএস স্বেচ্ছাসেবক রয়েছে। আমাদের নদী ও জলাশয়গুলো পানিতে পরিপূর্ণ। ’

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

news24bd.tv/মামুন