জঙ্গিবাদে জড়িয়ে ঘর ছাড়া ৭ জন র‍্যাবের হাতে গ্রেপ্তার
জঙ্গিবাদে জড়িয়ে ঘর ছাড়া ৭ জন র‍্যাবের হাতে গ্রেপ্তার

সংগৃহীত ছবি

জঙ্গিবাদে জড়িয়ে ঘর ছাড়া ৭ জন র‍্যাবের হাতে গ্রেপ্তার

অনলাইন ডেস্ক

জঙ্গিবাদে জড়িয়ে কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে বাড়ি ছেড়ে যাওয়া ৪ জনসহ মোট ৭ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। বৃহস্পতিবার ঢাকার কারওয়ান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সংস্থাটির আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন।

র‌্যাব জানায়, কুমিল্লা সদর এলাকা থেকে নিখোঁজ আট তরুণের একজন ছিলেন শারতাজ। তিনি গত ১ সেপ্টেম্বর রাজধানীর কল্যাণপুরের বাড়িতে ফিরে আসেন।

শারতাজকে তার পরিবারের হেফাজতে রেখে নিখোঁজ অন্যান্যদের ব্যাপারে তথ্য সংগ্রহ করে র‍্যাব। তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে মঙ্গলবার ওই সাতজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

র‌্যাবের হাতে গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন- পটুয়াখালীর মাদ্রাসা শিক্ষক হোসাইন আহম্মদ (৩৩), বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইন্সটিটিউট-বারির বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা নেছার উদ্দিন ওরফে উমায়ের (৩৪), পটুয়াখালীর কম্পিউটার ব্যবসায়ী বণি আমিন (২৭), কুমিল্লা থেকে নিখোঁজ হওয়া ছাত্র ইমতিয়াজ আহমেদ রিফাত (১৯) ও হাসিবুল ইসলাম (২০); তাদের সঙ্গে নিখোঁজ হওয়া গোপালগঞ্জের ডিপ্লোমা প্রকৌশলী রোমান শিকদার এবং ঢাকার একটি ছাপাখানার কর্মী মো. সাবিত (১৯)।

তাদের কাছ থেকে নতুন জঙ্গি সংগঠনের তিন ধরনের প্রচারপত্র, বিস্ফোরক তৈরির নির্দেশিকা সম্বলিত পুস্তিকা, জঙ্গি সংগঠনটির কর্মপদ্ধতি, উগ্রবাদী বই ‘নেদায়ে তাওহীদ’, জিহাদী উগ্রবাদ ভিডিও সম্বলিত একটি ট্যাব উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

র‌্যাবের পরিচালক জানান, গ্রেপ্তার হওয়াদের মধ্যে হোসাইন, নেছার ও বণি আগেই উগ্রবাদে দীক্ষিত ছিলেন। এই তিনজনই সাম্প্রতিক সময়ে নতুন সদস্য নিয়োগ ও প্রশিক্ষণে যুক্ত ছিলেন।

বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) র‍্যাবের সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন শারতাজও। জঙ্গিবাদের জড়িয়ে পড়া ও পরবর্তী সময়ে নিজের ভুল বুঝতে পেরে বাড়ি ফিরে আসার কথা এ সময় সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন শারতাজ।

শারতাজ বলেন, এটা একটা ভুল পথ। পরিবার ছেড়ে কথিত হিজরতে যাওয়ার পরই আমি নিজের ভুল বুঝতে পারি। তাই সেখান থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করি এবং সুযোগ বুঝে পালিয়ে বাসায় ফিরে যাই।

শারতাজ আরও বলেন, আমি ৪-৫ দিন হিজরতে ছিলাম। তার মধ্যেই বুঝতে পারি যে এটা ভুল পথ, আসলেই এটা ভুল পথ। এই ভুল পথে কেউ যাতে আর কেউ পা না বাড়ায়, আমি সেই অনুরোধই জানাই।

news24bd.tv/আজিজ