দেশে নারীর ক্ষমতায়ন ও মর্যাদা বৃদ্ধিতে ইতিহাস সৃষ্টি হয়েছে: পলক
দেশে নারীর ক্ষমতায়ন ও মর্যাদা বৃদ্ধিতে ইতিহাস সৃষ্টি হয়েছে: পলক

সংগৃহীত ছবি

দেশে নারীর ক্ষমতায়ন ও মর্যাদা বৃদ্ধিতে ইতিহাস সৃষ্টি হয়েছে: পলক

অনলাইন ডেস্ক

আধুনিক বাংলাদেশের স্থপতি  প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিভিন্ন কার্যকরী পদক্ষেপ বাস্তবায়নের ফলে দেশে নারী সমাজের কর্মসৃজন, ক্ষমতায়ন ও মর্যাদা বৃদ্ধিতে যুগান্তকারী ইতিহাস সৃষ্টি হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী দেশের নারী উদ্যোক্তাদের শক্তি, সাহস ও অনুপ্রেরণা যুগিয়েছেন। ’

শনিবার (১৫ অক্টোবর) রাতে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে  উই সামিট-২০২২ এর জয়ী অ্যাওয়ার্ড প্রদান উপলক্ষে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি  এসব কথা বলেন। ২০ জন নারীকে জয়ী ঘোষণার মাধ্যমে শেষ হলো দুই দিনব্যাপী উই সামিট-২০২২।

 পরে জয়ী অ্যাওয়ার্ড বিজয়ীদের হাতে সম্মাননা তুলে দেন  আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলক।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘সততা, সাহসিকতা ও দূরদর্শিতা দিষয়ে  প্রধানমন্ত্রী  গত ১৩ বছরে বাংলাদেশকে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে  উন্নয়নশীল, প্রযুক্তি নির্ভর , ডিজিটাল বাংলাদেশ পরিণত করেছেন। এ বছর দুইটি ক্যাটাগরিতে জয়ী সম্মাননা প্রদান করা হয়। সমাজের বিভিন্ন স্তরে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালনের জন্য এই সম্মাননা পান মেহজাবিন চৌধুরী, প্রফেসর ড. সায়েবা আক্তার, রুবাবা  উদদৌলা, রুবানা হক, এম.এস.সাবিনা খাতুন, ড. সেজ্যুতি সাহা, শমী কায়সার,  সোনিয়া বশির কবির, আনজানা খান মজলিস ও আজমেরী হক বাঁধন।

উদ্যোক্তা ক্ষেত্রে দ্যুতি ছড়ানোর জন্য এই সম্মাননা পান ইফাত সোলাইমান লুবনা, মাহবুবা আক্তার জাহান মুক্তা আক্তার, জ্যোৎস্না আখতার রেণু, মিস সুরাইয়া মোরশেদ, সোহাইব রুমি,  সুলতানা পারভিন, তাহিয়া সুলতানা রেশমি, তাশফিয়া ত্রিনয়, রাজিয়া সুলতানা

অনুষ্ঠানে আরও বক্তৃতা করেন ফুড ফান্ডার সিইও আন্বারিন রেজা, ই ক্যাবের সভাপতি শমী কায়সার, উই প্রেসিডেন্ট নাসিমা আক্তার নিশা এবং উই এর ওয়ার্কিং কমিটি ডিরেক্টর ইমানা হক জ্যোতি  প্রমুখ।

news24bd.tv/ইস্রাফিল