ঝিনাইদহে যুবককে গাছে বেঁধে নির্যাতন
ঝিনাইদহে যুবককে গাছে বেঁধে নির্যাতন

ঝিনাইদহে যুবককে গাছে বেঁধে নির্যাতন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

ঝিনাইদহের সীমান্তবর্তী উপজেলা মহেশপুরে টাকা ফেরত চাওয়ায় এক যুবককে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়। নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ায় সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার দুপুরে উপজেলার বাঁশবাড়িয়া ইউনিয়নের ভোলাডাঙ্গা গ্রামে।

স্থানীয়রা জানায়, ভোলাডাঙ্গা গ্রামের খোদাবক্সের ছেলে বকুল হোসেনের সাথে একই গ্রামের লুৎফর রহমানের মেয়ে লতিফার বিয়ে হয়।

বিয়ের কিছুদিন পর বকুল বিদেশে পাড়ি জমায়। বিদেশে উপার্জিত অর্থ তার স্ত্রীর কাছে পাঠায়। কয়েক বছর বিদেশে থাকার পর প্রায় এক বছর  সে দেশে ফিরেছে। বাড়িতে এসে জানতে পারে তার বিবাহিত স্ত্রী অন্যত্র বিয়ে করে সংসার করছে।
 

তার পাঠানো অর্থ শ্বশুরবাড়ির লোকজনের কাছে ফেরত চাইলে দিতে অসম্মতি জানায়। বকুল টাকা উদ্ধারের জন্য প্রায় ওই বাড়িতে যেত। বকুল লুৎফরের ছোট মেয়েকে উত্যক্ত করতো বলেও অভিযোগ রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে গ্রাম্য সালিশ বৈঠকে কোনো সুরাহা না হওয়ায় প্রায় উভয় পরিবারের মধ্যে বাকবিতণ্ডা চলে আসছিল।  

এরই জের ধরে শুক্রবার দুপুরে বকুল লুৎফর রহমানের বাড়ির সামনে যায়। সেসময় লুৎফর রহমান ও তার ভাইয়েরা তাকে বাড়ির মধ্যে নিয়ে গাছের সাথে বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় অমানবিক নির্যাতন চালায়। এতে সে গুরুতর আহত হয়। পরে পুলিশ সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহত বকুলকে উদ্ধার করে মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। তার অবস্থার অবণতি হলে তাকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ বিষয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

মহেশপুর থানার ওসি সেলিম মিয়া বলেন, এ ব্যাপারে অভিযোগ পেয়েছি। আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে।

news24bd.tv/কামরুল