সাবেক স্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে মারধরের শিকার যুবলীগ নেতা
সাবেক স্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে মারধরের শিকার যুবলীগ নেতা

সংগৃহীত ছবি

সাবেক স্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে গিয়ে মারধরের শিকার যুবলীগ নেতা

টাঙ্গাইলে সাবেক স্ত্রীর সঙ্গে গোপনে দেখা করতে গিয়ে ধরা পড়েন মো. উজ্জল হোসেন নামে এক যুবলীগ নেতা। পরে তাকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছে ওই নারীর পরিবারের বিরুদ্ধে।  

এদিকে নির্যাতনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। নির্যাতনের শিকার উজ্জল হোসেন ঘারিন্দা ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সহ-সভাপতি।

শুক্রবার (২১ অক্টোবর) সকালে টাঙ্গাইল সদর উপজেলার ঘারিন্দা ইউনিয়নের সারুটিয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী উজ্জল হোসেন বলেন, সকালে রাস্তা দিয়ে হাঁটছিলাম। এসময় আমাকে ধরে নিয়ে যান সাবেক শ্বশুর, চাচা শ্বশুরসহ চারজন। পরে তারা আমাকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করেছেন।

মারধরের কারণে আমার বাম হাত ভেঙে গেছে। আমি বর্তমানে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি আছি।

এ বিষয়ে উজ্জল হোসেনের সাবেক স্ত্রী বলেন, সকালে ফজরের নামাজের পর বাড়ির পাশে হইচই শুনতে পাই। পরে জানতে পারি উজ্জল হোসেনকে কে বা কারা মারধর করেছে। তাকে মারধরের বিষয়ে আমরা কিছুই জানি না।

স্থানীয় ইউপি সদস্য লুৎফর হোসেন বলেন, ছয় মাস আগে সাটুরিয়া গ্রামের এক মেয়ের সঙ্গে উজ্জল হোসেনের বিয়ে হয়। আড়াই মাস আগে তাদের বিচ্ছেদ হয়। সম্প্রতি উজ্জল ওই মেয়ের সঙ্গে আবারও যোগাযোগ করার চেষ্টা করেন। গত বৃহস্পতিবার রাতে মেয়েটির সঙ্গে উজ্জ্বল হোসেন দেখা করতে যান। মেয়েটির বাড়ির লোকজন বিষয়টি টের পেয়ে উজ্জ্বলকে আটক করে।

ভাইরাল ওই ভিডিওতে দেখা যায়, এক ব্যক্তি উজ্জ্বল হোসেনকে গাছের সঙ্গে বেঁধে মারধর করছেন।

টাঙ্গাইল সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবু সাইম তালুকদার বিপ্লব বলেন, বিষয়টি জানার পর উজ্জল হোসেনকে যুবলীগের পদ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

ঘারিন্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। তবে এ ব্যাপারে এখনো বিস্তারিত কিছু জানি না।

টাঙ্গাইল মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবু ছালাম মিয়া বলেন, ভিডিওটি দেখার পর এক কর্মকর্তাকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তদন্ত শেষে বিস্তারিত জানা যাবে।

news24bd.tv/ইস্রাফিল

এই রকম আরও টপিক