ঢাবিতে তরুণীকে হেনস্থার অভিযোগ ছাত্রলীগ কর্মীর বিরুদ্ধে
ঢাবিতে তরুণীকে হেনস্থার অভিযোগ ছাত্রলীগ কর্মীর বিরুদ্ধে

সংগৃহীত ছবি

ঢাবিতে তরুণীকে হেনস্থার অভিযোগ ছাত্রলীগ কর্মীর বিরুদ্ধে

অনলাইন ডেস্ক

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) এক তরুণীকে উত্ত্যক্ত ও মারধরের অভিযোগ উঠেছে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের এক কর্মীর বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার রাত তিনটার দিকে ছাত্র-শিক্ষক কেন্দ্র (টিএসসি)- রাজু ভাস্কর্যের সামনে এ ঘটনা ঘটে।  

অভিযুক্ত শিক্ষার্থী নাজমুল ওরফে জিম সমাজকল্যাণ ও গবেষণা ইন্সটিটিউটের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টারদা সূর্য সেন হল ছাত্রলীগের সভাপতি মারিয়াম সোহানের অনুসারী বলে ক্যাম্পাসে পরিচিত।

 
 
অভিযুক্ত জিমের বিরুদ্ধে আরেক ভুক্তভোগী টাকা ছিনতাই করার অভিযোগ আনেন। তবে সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তিনি।  

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, দুই জন বন্ধুর সঙ্গে ঢাবি ক্যাম্পাসে এসে রাজু ভাস্কর্যের সামনে ছবি তুলছিলেন ওই তরুণী। হঠাৎ নাজমুল এবং তার এক বন্ধু ওই তরুণী এবং তার বন্ধুদের এতো রাতে ক্যাম্পাসে আসার কারণ জানতে চান।

তারা ছবি তুলছেন জানালে তাদের আরও নানা প্রশ্ন করতে থাকেন। এক পর্যায়ে জিম গালিগালাজ করলে তারা ক্ষিপ্ত হন এবং ওই তরুণী জিমকে প্রথমে একটি থাপ্পর মারেন। তখন জিমও তরুণীকে পরপর তিনটি থাপ্পর মারেন।  

অভিযোগের বিষয়ে জিম বলেন, আমি রাতের খাবার খেয়ে মোটরসাইকেলে ফেরার পথে দেখতে পাই ওই তরুণ-তরুণীরা রাজু ভাষ্কর্যে ঘুমিয়ে থাকা ভাসমান মানুষের ছবি তুলছে। আমি ছবি তোলার আগে অনুমতি নিয়েছে কিনা জানতে চাই। এটা জিজ্ঞেস করলে ওই তরুণী ক্যাম্পাস কিনে নেওয়ার কথা বলেন। আমি ভিডিও করতে গেলে ‘দুই টাকার মোবাইল, ভাঙ্গা মোটরসাইকেল ব্যবহার করি’ ইত্যাদি বলে উস্কানি দেন। এমনকি আমার গায়ে হাত তোলেন। তখন অন্যরা গিয়ে আমাকে থামিয়েছে।  

এদিকে, এ ঘটনার সময় সেখানে আবুল বাসার নামে এক ব্যক্তি জিমের বিরুদ্ধে ছিনতাইয়ের অভিযোগ তোলেন। বাসার জানান, তিনি ক্যাম্পাসের হাকিম চত্বরের একটি দোকানের কর্মচারী। সোমবার রাত ১০টার দিকে তিনি বেতন তুলে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ভেতর দিয়ে যাওয়ার সময় নাজমুল তাকে একা পেয়ে মারধর করেন। তখন ফোন, ম্যানিব্যাগ এবং হেডফোন নিয়ে নেন জিম। পরে ফোন ফিরিয়ে দিলেও সব টাকা নিয়ে নেন।  তবে এ অভিযোগকে ষড়যন্ত্র বলে দাবি করেন জিম।  

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. একেএম গোলাম রব্বানী বলেন, ‘এক তরুণী মৌখিকভাবে বিষয়টি জানিয়েছেন। তাকে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছে অভিযোগ করতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে তাকে প্রয়োজনীয় আইনী সহযোগিতা করা হবে। ’  

এদিকে, বক্তব্য জানতে সুর্যসেন হল ছাত্রলীগের সভাপতি মারিয়াম সোহানের একাধিক নম্বরে একাধিকবার কল করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

news24bd.tv/হারুন