বিকাশ থেকে টাকা পাঠানো যাবে রকেটে
বিকাশ থেকে টাকা পাঠানো যাবে রকেটে

প্রতীকী ছবি

বিকাশ থেকে টাকা পাঠানো যাবে রকেটে

অনলাইন ডেস্ক

দেশে ডিজিটাল লেনদেনে আসছে নতুন সেবা 'বিনিময়'। এর মাধ্যমে বিকাশ থেকে রকেটে টাকা স্থানান্তর করা যাবে। একইসঙ্গে যেকোনো ব্যাংক থেকে এমএফএসে বা এমএফএস থেকে ব্যাংকে তাৎক্ষণিক টাকা স্থানান্তরের সুযোগও থাকছে। আগামী রোববার (১৩ নভেম্বর) নতুন এ সেবার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে।

তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগের উদ্ভাবন ও উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমি প্রতিষ্ঠাকরণ (আইডিয়া) প্রকল্প ও বাংলাদেশ ব্যাংকের উদ্যোগে তৈরি হচ্ছে 'বিনিময়'। এতে খরচ হয়েছে প্রায় ৬৫ কোটি টাকা।

এ বিষয়ে খাতসংশ্লিষ্টরা বলছেন, এ সেবা চালুর মাধ্যমে দেশে ডিজিটাল লেনদেনের ক্ষেত্রে নতুন মাত্রা যুক্ত হবে।

আপাতত টাকা স্থানান্তরে গ্রাহকদের কোনো খরচ দিতে হবে না।

পরবর্তী সময়ে এই সেবার খরচ নির্ধারণ করে দেবে বাংলাদেশ ব্যাংক। তবে সরকারি সেবা হওয়ায় খরচ হবে কম। আর সেবাপ্রতিষ্ঠানগুলো খরচ নিলেও আইডিটিপি কোনো খরচ নেবে না।  

এর আগে সব প্রস্তুতি নিয়েও এমএফএস প্রতিষ্ঠানগুলোর একটির সঙ্গে আরেকটির পারস্পরিক লেনদেনের প্রক্রিয়া, অর্থাৎ এক এমএফএস থেকে অন্য এমএফএসে টাকা পাঠানোর সেবা চালু করেনি বাংলাদেশ ব্যাংক। কারণ, তখন এতে যুক্ত হয় তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগ। নেওয়া হয় নতুন সরকারি প্রকল্প। তখন ন্যাশনাল পেমেন্ট সুইচ বাংলাদেশের (এনপিএসবি) মাধ্যমে বিকাশ টু রকেট, বিকাশ/রকেট টু ব্যাংক—এভাবে টাকা স্থানান্তরের সেবা চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। ২০২০ সালের ২৭ অক্টোবর থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে সেবাটি চালুর কথা ছিল। সে সময় এ নিয়ে প্রজ্ঞাপনও জারি করেছিল বাংলাদেশ ব্যাংক। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেটি আর চালু হয়নি।

তবে এখনই সব ব্যাংক, এমএফএস ও পেমেন্ট সার্ভিস প্রোভাইডার (পিএসপি) 'বিনিময়ে' যুক্ত হচ্ছে না। আপাতত সোনালী ব্যাংক, ব্র্যাক ব্যাংক, ইসলামী ব্যাংক, ইস্টার্ন ব্যাংক, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, মিডল্যান্ড ব্যাংক, পূবালী ব্যাংক, ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক, আল–আরাফাহ্‌ ইসলামী ব্যাংক ও ডাচ্‌–বাংলা ব্যাংক এ সেবায় যুক্ত হচ্ছে।

এ ছাড়া এমএফএসে হিসেবে থাকছে বিকাশ ও রকেট। এ ছাড়া পিএসপি হিসেবে যুক্ত হচ্ছে প্রগতি সিস্টেমের টালিপে। ধীরে ধীরে সব ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, এমএফএস ও পিএসপি এই সেবায় যুক্ত হবে।

এ ব্যাপারে বিকাশের যোগাযোগ বিভাগের প্রধান শামসুদ্দিন হায়দার বলেন, এই প্রযুক্তিগত সমন্বয়ের ফলে গ্রাহকেরা তাঁদের লেনদেনে আরও সক্ষমতা অর্জন করবেন। সহজে লেনদেন সুবিধা পাবেন।

যেভাবে কাজ করবে 'বিনিময়'

শুরুতেই বিনিময় নামে ভিন্ন কোনো অ্যাপ তৈরি হচ্ছে না। বিনিময় একটি সেবা হিসেবে ব্যাংক, এমএফএসের অ্যাপে যুক্ত হবে। বিনিময় ব্যবহার করতে চাইলে গ্রাহককে নিবন্ধন করতে হবে। নিবন্ধনের পর গ্রাহকের নামের পরে@binimoy.gov.bd যুক্ত হয়ে একটি আইডি তৈরি হবে। নিবন্ধন শেষ হলে গ্রাহক দুটি অপশন দেখতে পাবেন 'সেন্ড মানি' ও 'রিসিভ মানি'। গ্রাহক যদি কাউকে টাকা পাঠাতে চান, তখন সেন্ড মানি অপশনে গেলে নিজের যেসব আর্থিক প্রতিষ্ঠানে গ্রাহকের অ্যাকাউন্ট আছে, তা থেকে একটি বেছে নিতে হবে। এবার যাঁকে পাঠাবেন, তাঁর মুঠোফোন নম্বর বা ইতিমধ্যে যদি ওই ব্যক্তির বিনিময়ে আইডি থাকে, সে আইডি নম্বর দিয়ে টাকা পাঠানো যাবে। আর যাঁকে টাকা পাঠানো হলো, তিনি 'রিসিভ মানি' অপশনে গিয়ে নিজের অ্যাকাউন্টে থাকা যেকোনো আর্থিক প্রতিষ্ঠানের নম্বরে টাকাটা গ্রহণ করতে পারবেন।

আইডিয়া প্রকল্পের জ্যেষ্ঠ পরামর্শক মোস্তফা সাজ্জাদ হাসান বলেন, প্রথম পর্যায়ে বিনিময়ে শুধু লেনদেন করা যাবে। পরবর্তী সময়ে বিনিময় অ্যাপ হবে। এরপর ধাপে ধাপে মেট্রোরেলের ভাড়া, টোল দেওয়া, এনবিআরের সেবা ও বিভিন্ন পরিষেবা বিল যুক্ত হবে।  

আইডিয়া প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. আলতাফ হোসেন বলেন, আর্থিক খাতে খুব ভালো একটি সেবা চালু হতে যাচ্ছে। ভবিষ্যতে এর পরিসর আরও বাড়বে।

news24bd.tv/রিমু