বিএনপির গণসমাবেশ: পটুয়াখালীতে পরিবহন ধর্মঘট
বিএনপির গণসমাবেশ: পটুয়াখালীতে পরিবহন ধর্মঘট

ফাইল ছবি

বিএনপির গণসমাবেশ: পটুয়াখালীতে পরিবহন ধর্মঘট

পটুয়াখালী প্রতিনিধি

পটুয়াখালী জেলার সকল রুটে যাত্রীবাহী বাস চলাচল বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে পটুয়াখালী জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতি। বিএনপির দাবী আগামী ৫ নভেম্বর বিএনপির বরিশাল বিভাগীয় গণসমাবেশে নেতা-কর্মী-সমর্থকদের যোগদানে বাধাগ্রস্ত ও সমাবেশ বানচাল করতে পরিকল্পিত ভাবে এ ধর্মঘটের ডাক দেয়া হয়েছে।  

বিএনপি নেতা এ্যাড. মজিবুর রহমান টোটন অভিযোগ করে বলেন, শুধু বাস ধর্মঘটই নয়, পটুয়াখালীর সবকটি থানা থেকে নেতা-কর্মীরা ট্রলারযোগে বরিশালে সমাবেশে যোগ দিতে নৌযান ভাড়া করলেও তার চাবি নিয়ে গেছে সংশ্লিষ্ট থানা ও উপজেলা প্রশাসন।

পটুয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক ও জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি মো. রিয়াজ উদ্দিন জানান, মহাসড়কে ত্রি-হুইলার, টমটম, নসিমন, অটোরিক্সাসহ সকল অবৈধ যানবাহন চলাচলে মহামান্য হাইকোর্টের সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা থাকলেও স্থানীয় প্রশাসন এ ব্যাপারে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি।

বিভিন্ন সময়ে এ নিয়ে তাদের সাথে আলোচনা হলেও এ ব্যাপারে তারা কোন পদক্ষেপ নিচ্ছেন না। ফলে সড়কে প্রায়ই দুর্ঘটনা ঘটছে।  

তিনি আরও বলেন, অবৈধ এসব যানবাহন বন্ধে প্রশাসনকে ৩ নভেম্বর পর্যন্ত আল্টিমেটাম দেওয়া হয়েছে। যদি তারা কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করে তাহলে মধ্যরাত থেকে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট চলবে।

এ ধর্মঘটের বিষয়ে আওয়ামী লীগের দলীয় কোন নির্দেশনা বা হস্তক্ষেপ নেই বলে জানান রিয়াজ উদ্দিন।

পটুয়াখালী জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড. মজিবুর রহমান টোটন বলেন, আমাদের বরিশাল মহাসমাবেশকে বানচাল করার জন্য পূর্ব পরিকল্পিতভাবে রাজনৈতিক হয়রানি করার জন্য এই বাস ধর্মঘট। শুধু বাস ধর্মঘটই না এখানে আমাদের নেতা-কর্মীরা ট্রলারযোগে আসবে সেই ট্রলারগুলোর মাঝিদেরকে ডেকে ডেকে নিয়ে চাবি নিয়ে যাচ্ছে সংশ্লিষ্ট থানা প্রশাসন ও আওয়ামী লীগের লোকজন।

news24bd.tv/আজিজ