রাশিয়ার তেলের দাম বেঁধে দিতে একমত জি-৭
রাশিয়ার তেলের দাম বেঁধে দিতে একমত জি-৭

সংগৃহীত ছবি

রাশিয়ার তেলের দাম বেঁধে দিতে একমত জি-৭

অনলাইন ডেস্ক

রাশিয়ার তেলের দর বেঁধে দিতে একমতে পৌঁছেছে উন্নত অর্থনীতির সাত দেশের জোট জি-৭। চলতি মাসের শেষে নাগাদ এ দাম নির্ধারণ করবে জোটটি। এক সূত্রের বরাতে শুক্রবার এক প্রতিবেদনে এমনটা দাবি করছে আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে লন্ডন ভিত্তিক সংবাদ সংস্থাটি জানায়, বৃহস্পতিবার এক সূত্র তাদের নিশ্চিত করেছে যে, চলতি মাসের শেষের দিকে রাশিয়ার তেলের দর বেঁধে দিবে জোটটি।

সর্বশেষ কয়েক সপ্তাহ ধরেই সমুদ্র পথে অর্থাৎ কার্গো জাহাজ সরবরাহিত রুশ তেলের চালানের মূল্যসীমা নির্ধারণের (প্রাইস ক্যাপ) করতে আলোচনা করছে জি-৭ ও মার্কিন কর্মকর্তারা। রাশিয়া যাতে তেল বিক্রির মুনাফা ইউক্রেন যুদ্ধে ব্যবহার করতে না পারে সেজন্য এ পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। এ ছাড়া মস্কোর ওপর ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞাগুলো যেন বিশ্ব তেল বাজারে প্রভাব না ফেলে তার জন্যই এমনটা করা হচ্ছে।

জি-৭ জোটের এক সূত্র বলেছেন, ‘রুশ তেলের দাম নির্ধারণে জোট সম্মত হয়েছে।

তবে নিয়মিত এটি পর্যালোচনা করা হবে। এতে বাজারের স্থিতিশীলতা বাড়বে। এ ছাড়া বাজারের অংশগ্রহণকারীদের ওপর বোঝা কমবে। ’

একাধিক সূত্রের বরাতে রয়টার্স জানিয়েছে,  প্রাথমিক মূল্য এখনও নির্ধারণ করা হয়নি। কিন্ত সামনের সপ্তাহেই এটি করা হবে। জোটের অংশীদাররা নিয়মিতভাবে নির্ধারিত মূল্য পর্যালোচনা করবে ও প্রয়োজনে এটি সংশোধন করবে।

আরেক সূত্র রয়টার্সকে বলেছেন, ‘সমুদ্র পথে সরবরাহিত ক্রুড তেলের দাম আন্তর্জাতিক বেঞ্চমার্কের নিচে হলে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন সরবরাহ কমাতে পারে। এ নিয়ে জোটটি চিন্তিত রয়েছে। ’

রয়টার্স বলছে, জি-৭ জোটের এই সিদ্ধান্তে পুতিন লাভবানও হতে পারেন। কারণ বিশ্বের অন্যতম তেল উৎপাদনকারী দেশ রাশিয়া যদি উৎপাদন কমিয়ে দেয় তাহলে আন্তর্জাতিক বেঞ্চমার্কে তেলের দাম বাড়বে। এমনটা হলে পুতিনের দেশের তেলের দাম বাড়বে।  

এ দিকে আগে থেকেই তেলের দাম নির্ধারণকানী দেশগুলোর কাছে বিক্রি বন্ধের কথা জানিয়ে আসছে রাশিয়া। ওয়াশিংটনে মস্কোর রাষ্ট্রদূত আনাতোলি আন্তোনোভ সম্প্রতি সতর্ক করেছেন যে তেলের দাম বেঁধে দিলে বৈশ্বিক জ্বালানি সংকটকে আরও খারাপ হতে পারে।

news24bd.tv/মামুন

এই রকম আরও টপিক