শাকিব-অপুর বিপক্ষে পূজা 
শাকিব-অপুর বিপক্ষে পূজা 

পূজা-শাকিব-অপু

শাকিব-অপুর বিপক্ষে পূজা 

অনলাইন ডেস্ক

আগামীকাল রোববার পর্দা উঠছে কাতার ফুটবল বিশ্বকাপের। বিশ্বকাপে নিজেরা না খেললেও সমর্থনে পিছিয়ে নেই বাংলাদেশ। ফুটবল বিশ্বকাপ ঘিরে বাংলাদেশেও ফুটবলপ্রেমীদের মধ্যে শুরু হয়েছে উন্মাদনা। নিজের পছন্দের দলের পতাকা আর জার্সির রঙে সাজতে শুরু করেছে পুরো দেশ।

এদিকে অন্যান্য দর্শকদের মতো তারকাদের মধ্যেও খেলা নিয়ে বেশ উত্তেজনা শুরু হয়েছে। কেউ সাপোর্ট করছেন ব্রাজিল কেউ আবার আর্জেন্টিনা।  

ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় নায়ক শাকিব খান ব্রাজিল দলের সাপোর্টার। সেইসঙ্গে শাকিবের প্রাক্তন স্ত্রী ও তার সন্তানের মা অভিনেত্রী অপু বিশ্বাসও ব্রাজিলের সাপোর্টার বলে সম্প্রতি নিজেই জানিয়েছেন।

তবে ঢালিউডের আরেক নায়িকা পূজা চেরি শাকিব-অপুর উল্টো পক্ষে।  আর্জেন্টিনার সাপোর্টার তিনি।

বিশ্বকাপকে কেন্দ্র করে শাকিব খান ও চিত্রনায়িকা পূজা চেরি এক গণমাধ্যমে জানালেন তাদের পছন্দের দলের কথা।

২০১৪ সালে শাকিব খান বলেছিলেন, ছোটবেলা থেকেই ব্রাজিলের সমর্থক তিনি। আবার ২০১৮ সালের বক্তব্যে জানান, আর্জেন্টিনা। ২০২২ সালের বক্তব্য কী?

এ বিষয়ে শাকিব খান বলেন, শাকিবিয়ানদের পছন্দকে আমি সবসময় প্রায়োরিটি দিই। শাকিবিয়ানরা যাদের পছন্দ করে, আমিও তাদের সমর্থন করি।

সবশেষ তিনি একটি কোম্পানির অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে বুঝিয়ে দিয়ে যান এবারের বিশ্বকাপে তিনি ব্রাজিলের সাপোর্টার।

ম

এদিকে ব্রাজিল দলের আরেক সাপোর্টার অপু বিশ্বাস বলেন, 'পাঁচবারের বিশ্বকাপজয়ী ব্রাজিল দলের সাপোর্টার আমি। তাই আর সব ফুটবল ফ্যানদেরও ব্রাজিল সমর্থন করতে অনুরোধ জানাই। আগেও ব্রাজিল দল করতাম, তবে সেটা না বুঝে। এখন ফুটবল খেলাটা বেশ বুঝি, ব্রাজিলই আমার সেরা দল'।

তিনি বলেন, 'ফুটবল খেলা যারা পছন্দ করেন এবং বোঝেন, তারা আসলেই ব্রাজিলকে সাপোর্ট করেন। ব্রাজিলের খেলোয়াড়দের খেলায় আলাদা একটা ছন্দ আছে, যা অন্য দলের ক্ষেত্রে আমি অনুভব করি না'।

হ

অন্যদিকে পূজা চেরি বলেন, এক কথায় আর্জেন্টিনা সাপোর্ট করি। আমার একটাই দল- আর্জেন্টিনা। আর কোনো দলকে সমর্থন করব না। যদি আর্জেন্টিনা হেরে যায় টিভি বন্ধ করে দেব। খেলা দেখব না। কথা শেষ। আর্জেন্টিনার বাইরে আর কোনো দল নাই।

তিনি বলেন, যখন থেকে খেলা বুঝি, তখন থেকেই আর্জেন্টিনাকে সমর্থন জানাচ্ছি। বিশেষ করে লিওনেল মেসির ভক্ত আমি। আর আমার মায়ের কাছে শুনেছি ম্যারাডোনার কথা। তখন খেলা দেখেছি। তারও ভক্ত আমি। মার্কো রহো আর ডি মারিয়ার খেলা দেখেও নিজেকে তরতাজা লাগে। তাই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কে কী বলল তা নিয়ে মাথা ঘামাই না। খেলা তো খেলাই। অনেকে মজা নিতে চাইবে। তাদেরকে নিতে দিন। যা হওয়ার ম্যাচে হবে।

news24bd.tv/রিমু