রেকর্ডবুকে তোলপাড়, তামিল নাড়ু-জগদীশনের ৫ বিশ্বরেকর্ড
রেকর্ডবুকে তোলপাড়, তামিল নাড়ু-জগদীশনের ৫ বিশ্বরেকর্ড

রেকর্ডবুকে তোলপাড়, তামিল নাড়ু-জগদীশনের ৫ বিশ্বরেকর্ড

অনলাইন ডেস্ক

লিস্ট-এ ক্রিকেটে দলীয় এবং ব্যক্তিগত স্কোরের নতুন বিশ্বকাপ রেকর্ড গড়ল তামিল নাড়ু এবং দলটির ওপেনার নারায়ণ জগদীশন। আজ সোমবার বিজয় হাজারে ট্রফিতে অরুনাচল প্রদেশের বিপক্ষে তামিল নাড়ু আগে ব্যাট করে ২ উইকেটের বিনিময়ে স্কোরবোর্ডে তোলে ৫০৬ রান! লিস্ট-এ ক্রিকেট ইতিহাসে এর আগে কোনো দলই ৫০০ রানের মাইলফলক স্পর্শ করতে পারেনি।

দলের বিশ্বরেকর্ডের দিনে জগদীশনও নাম লিখিয়েছেন ইতিহাসের পাতায়। ২৭৭ রান করে একদিনের প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে এখন ইনিংসে সর্বোচ্চ রানের মালিক তিনি।

শুধু তাই নয়, আজ ওপেনিং সঙ্গী সাই সুদর্শনকে নিয়ে উদ্বোধনী জুটিতে সর্বোচ্চ রান তোলার বিশ্বরেকর্ডও গড়েছেন জগদীশন। অরুনাচলের বিপক্ষে ইনিংস শুরু করতে নেমে জগদীশন-সুদর্শন জুটি বেধে স্কোরবোর্ডে তোলেন ৪১৬ রান।

বিজয় হাজারে ট্রফিতে আজ বেঙ্গালুরু চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে অরুনাচল প্রদেশের বিপক্ষে পাঁচটি বিশ্বরেকর্ড গড়ে তামিল নাড়ু এবং জগদীশন। তামিল নাড়ু নতুন করে গড়ে দলীয় সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড এবং সর্বোচ্চ রান ব্যবধানে জয়ের রেকর্ড।

জগদীশন তো আরও এক কাঠি সরেশ। সাই সুদর্শনকে নিয়ে উদ্বোধনী জুটিতে রেকর্ড গড়া ছাড়াও আরও দুটি বিশ্বরেকর্ড গড়েন তিনি।

অরুনাচলের বিপক্ষে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরু থেকেই আগ্রাসী ছিলেন জগদীশন-সুদর্শন। তবে সুদর্শনের চেয়ে রান তোলায় একটু বেশি তাড়া ছিল জগদীশনের। ৭৬ বলে সেঞ্চুরি করেন তিনি। লিস্ট-এ ক্রিকেটে এটা তার টানা পঞ্চম সেঞ্চুরি। এখানেও বিশ্বরেকর্ড গড়েছেন জগদীশন। এর আগে, বিশ্বের অন্য কোনো ক্রিকেটার লিস্ট-এ ক্রিকেটে পাননি টানা পাঁচ সেঞ্চুরির দেখা। এ রেকর্ডটি এতদিন ছিল বিশ্বকাপে টানা চার সেঞ্চুরি হাঁকানো লঙ্কান কিংবদন্তি কুমার সাঙ্গাকারার।

সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন সাই সুদর্শনও। তবে তার ওপর আলো আসতে দেননি জগদীশন নিজে। ৭৬ বলে সেঞ্চুরির পর ১১৪ বলে ডাবল সেঞ্চুরি তুলে নেন এই ওপেনার। অর্থাৎ, সেঞ্চুরির পর ডাবলে যেতে তার লেগেছে কেবল ৩৮ বল! ডাবল সেঞ্চুরির পর জগদীশন হাঁটছিলেন প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে লিস্ট-এ ক্রিকেটে ট্রিপল সেঞ্চুরি হাঁকানোর পথে। তবে ‘ক্লান্ত’ জগদীশন সেই বিরল কীর্তির বেশ কাছাকাছি এসে থামেন ২৭৭ রানে।

ট্রিপল সেঞ্চুরি মিস করলেও, একদিনের সাদা বলের ক্রিকেটে এখন সর্বোচ্চ রানের মালিক তামিল নাড়ুর এই ওপেনার। এর আগে, লিস্ট-এ ক্রিকেটে এক ইনিংসে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের মালিক ছিলেন অ্যালিস্টার ব্রাউন। ২০ বছর আগে সারের হয়ে গ্লামরগানের বিপক্ষে ২৬৮ রান করেছিলেন তিনি। ১৪১ বলে ২৫ চার এবং ১৫ ছক্কায় বিশ্বরেকর্ড গড়ে জগদীশন সাজঘরে ফেরার আগে ১০২ বলে ১৫৪ রান করে বিদায় নেন সুদর্শন। এরপর দুই ভাই বাবা অপরাজিত এবং বাবা ইন্দ্রজিৎ সমান ৩১ রান করলে প্রথম দল হিসেবে ৫০০ রানের মাইলফলক পেরোয় তামিল নাড়ু।

তামিল নাড়ুর বিশ্বরেকর্ডের আগে লিস্ট-এ ক্রিকেটে সর্বোচ্চ দলীয় স্কোরের মালিক ছিল ইংল্যান্ড। এ বছরের জুনেই নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ৪ উইকেটে ৪৯৮ রান করেছিল ইংলিশরা। এদিকে, তামিল নাড়ুর দেওয়া ৫০৭ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে অরুনাচলের ইনিংস থেমেছে মাত্র ৭১ রানে, ম্যাচ হেরেছে ৪৩৫ রানে। এটাও এখন এক বিশ্বরেকর্ড। রান ব্যবধানে এর আগে সবচেয়ে বড় জয় ছিল সমারসেটের। ১৯৯০ সালে ন্যাশনাল ওয়েস্টমিনিস্টার ব্যাংক ট্রফিতে ডেভনকে ৪১৩ রানে হারায় সমারসেট।

news24bd.tv/সাব্বির