গোল হয়েও হলো না যে গোল
গোল হয়েও হলো না যে গোল

সংগৃহীত ছবি

গোল হয়েও হলো না যে গোল

অনলাইন ডেস্ক

সকল সমালোচনাকে পেছনে ফেলে গতকাল ২০২২ সালের ফুটবল বিশ্বকাপের পর্দা উঠে কাতারে। আর সেদিনই বিশ্ব দেখলো এই বিশ্বকাপের প্রথম গোল। গতকাল আল-বাইত স্টেডিয়ামে তাই কাতারের বিপক্ষে গোলটি করার পর উল্লাসে মেতেছিলেন এনার ভ্যালেন্সিয়া। ভ্যালেন্সিয়ার সঙ্গে উল্লাস করছিল পুরো ইকুয়েডর।

তবে মুহূর্তের মধ্যে লাতিন আমেরিকার দলটির কাছে তা পরিণত হয় ‘হরিষে বিষাদে’। কেননা প্রযুক্তিগত কারণে বাতিল হয়ে যায় গোলটি।  

গতকাল আল-বাইত স্টেডিয়ামে কাতার-ইকুয়েডর ম্যাচের ৩ মিনিটের ঘটনা। ফ্রী কিক নেন পারভিজ ইস্তুপিনান, যিনি ক্রস করে বল পাঠিয়ে দেন ডি বক্সে।

বল রিসিভ করেন ফেলিক্স তরেস, তরেস বলটা দেন মাইকেল এস্ত্রাদাকে। এস্ত্রাদা হেড দিয়ে বলটা দেন তরেসকে। তরেস দারুণ এক ডিগবাজি শট দেন, পরে সেখান থেকে অসাধারণ হেডে লক্ষ্যভেদ করেন ভ্যালেন্সিয়া। কিন্তু ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারি (ভিএআর) পর্যালোচনা করে রেফারি ওরসোতো গোল বাতিল করে দেন। যেখানে এবারের বিশ্বকাপের নতুন প্রযুক্তি সেমিঅটোমেটেড অফসাইড প্রযুক্তিতে দেখা যায়, এস্ত্রাদার ডান পা ছিল অফসাইডে।

ভ্যালেন্সিয়াকে এরপর অবশ্য বেশিক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়নি। ম্যাচের ১৫ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল পান ইকুয়েডরের এই ফরোয়ার্ড। এরপর ৩১ মিনিটে দারুণ এক হেডে লক্ষ্যভেদ করেন। ভ্যালেন্সিয়ার এই জোড়া গোলেই ইকুয়েডর ২-০ গোলে জয় পায় কাতারের বিপক্ষে।

জয় দিয়ে শুরু করা ইকুয়েডরের পরের ম্যাচ নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ২৫ নভেম্বর। ২৯ নভেম্বর সেনেগালের বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ খেলবে ইকুয়েডর।

news24bd.tv/আলী