বোমা হামলায় ওসি আহতের ঘটনায় ৮৫ জনের নামে মামলা
বোমা হামলায় ওসি আহতের ঘটনায় ৮৫ জনের নামে মামলা

সংগৃহীত ছবি

বোমা হামলায় ওসি আহতের ঘটনায় ৮৫ জনের নামে মামলা

অনলাইন ডেস্ক

মাদারীপুরের কালকিনিতে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্রে দুইপক্ষের সংঘর্ষ ও বোমা হামলার ঘটনায় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)সহ ১০ জন আহতের হওয়ায় ৮৫ জনের ‍নামে আলাদা দুটি মামলা করেছে পুলিশ। এদিকে এ ঘটনায় গ্রেপ্তার ৪ জনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

সোমবার (২১ নভেম্বর) বিকেলে জেলার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক অভিজিৎ চৌধুরী গ্রেপ্তার আসামিদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- কালকিনির টুমচর গ্রামের মোতালেব সরদারের ছেলে জসিম সরদার (৪০), একই গ্রামের আনোয়ার মীরের ছেলে নয়ন মীর (২১), আলমগীর সরদারের ছেলে তানভীর সরদার (১৮) ও শাহালম সরদারের ছেলে এরশাদ সরদার (১৮)।

মামলার বিবরণে জানা যায়, রোববার (২০ নভেম্বর) দুপুরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্রে করে কালকিনি উপজেলার আলীনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহীদ পারভেজ ও সাবেক চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান মিলনের কর্মী-সমর্থকরা সংঘর্ষে জড়ায়। খবর পেয়ে পুলিশ সদস্য নিয়ে ঘটনাস্থলে যান কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামীম হোসেন।

এ সময় উভয়পক্ষের লোকজন বেশ কয়েকটি হাতবোমার বিস্ফোরণ ঘটায়। বোমার আঘাতে আহত হন ওসি শামীম হোসেন ও এক পুলিশ সদস্যসহ উভয়পক্ষের আরও ৮ জন।

আহত ওসিকে উদ্ধার করে প্রথমে কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, পরে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

গ্রেপ্তার আতঙ্কে আহতরা কেউ ভর্তি হয়নি সরকারি কোন হাসপাতালে। এই ঘটনায় কালকিনি থানার এসআই শহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে ৩৮ জনের নাম উল্লেখ করে বিস্ফোরক আইনে একটি মামলা করেন। এছাড়া থানার আরেক এসআই মো. বদরুজামান বাদী হয়ে দ্রুত বিচার আইনে ৪৭ জনের নাম উল্লেখ করে অপর একটি মামলা করেন। মামলায় অভিযুক্ত সাবেক ও বর্তমান এই দুই চেয়ারম্যানকে আাসমী করা হয়েছে।

এছাড়া অজ্ঞাতনামা ৩০০-৪০০ জনকে আসামী করা হয়। পরে অভিযান চালিয়ে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ভারপ্রাপ্ত সদর সার্কেল) মো. মনিরুজ্জামান ফকির জানান, পুলিশের উপর হামলা ও সরকারি কাজে বাঁধা প্রদানের ঘটনায় আলাদা দুটি মামলা হয়েছে। চারজন গ্রেপ্তার হলেও বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারে চলছে অভিযান।  

এই রকম আরও টপিক