ইংল্যান্ডের দাপটে কাঁপছে ইরান 
ইংল্যান্ডের দাপটে কাঁপছে ইরান 

ইংল্যান্ডের দাপটে কাঁপছে ইরান 

অনলাইন ডেস্ক

কাতার বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে ইরানকে নিয়ে রীতিমতো ছেলেখেলাই করছে ইংল্যান্ড। দোহার খলিফা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে রক্ষণে মন দিয়ে ৩৪ মিনিট পর্যন্ত কেইন-স্টার্লিংদের আটকে রাখতে সমর্থ হয় ইরানের ফুটবলাররা। এরপর ভাঙে রক্ষণ-বাধ, ইংল্যান্ড মাত্র ১০ মিনিটের মধ্যে করে ৩ গোল। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত, ইরানের বিপক্ষে ৩-০ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে গেছে ইংলিশরা।

খলিফা স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ড-ইরান ম্যাচের শুরুটা ছিল বেশ ম্যাড়ম্যাড়ে। সুযোগ পেলে ইংল্যান্ডই উঠছিল আক্রমণে। তাদের এক আক্রমণ ঠেকাতে গিয়েই ইরানি গোলরক্ষক আলিরেজা বেইরানভান্দ সতীর্থের সঙ্গে সংঘর্ষে মাথায় আঘাত পান। সে কারণে খেলা বন্ধ ছিল প্রায় ১০ মিনিট।

আঘাতের পর প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে উঠে দাঁড়ালেও, আবার পরে যান আলিরেজা। শেষে স্ট্রেচারে করে মাঠ ছাড়তে হয় তাকে।

আলিরেজা মাঠ ছাড়তেই যেন কপাল পোড়ে ইরানের। ৩১ মিনিটেই এগিয়ে যেত পারতো ইংল্যান্ড, যদি হ্যারি ম্যাগুয়ারের দারুণ হেড ক্রসবারে লেগে ফিরে না আসতো। সেই আক্ষেপ অবশ্য বেশিক্ষণ থাকেনি ইংলিশ সমর্থকদের। ৩৫ মিনিটে গোলখাতা খোলেন জুড বেলিংহাম। বাঁ প্রান্ত থেকে লুক শর দারুণ এক ক্রস থেকে হেডে গোল করেন তিনি।  ইংল্যান্ডের জার্সি গায়ে এটাই বেলিংহামের প্রথম গোল।

ডেডলক ভাঙতেই মুহূর্তের মধ্যে আরও দুটি গোল পেয়ে যায় ইংল্যান্ড। ৪৩ মিনিটে ম্যাগুয়ারের হেড থেকে পাওয়া বল দারুণ শটে ইরানের জালে পাঠান বুকায়ো সাকা। বিশ্বকাপে সাকার এটি প্রথম গোল। মিনিটখানেক পর গোল উৎসবে নাম লেখান রাহিম স্টার্লিং। এবার ডান প্রান্ত থেকে হ্যারি কেইনের ক্রস থেকে নিখুঁত ফিনিশিংয়ে ব্যবধান ৩-০ করেন স্টার্লিং।  

আলিরেজা চোটে পড়ার  রেফারি প্রথমার্ধে ১৪ মিনিট অতিরিক্ত দেন। সে সময় আর কোনো দল গোল করতে পারেনি।   

news24bd.tv/সাব্বির