ব্রুনাই থেকে এলএনজি পেতে চুক্তি হতে পারে: নসরুল হামিদ
ব্রুনাই থেকে এলএনজি পেতে চুক্তি হতে পারে: নসরুল হামিদ

সংগৃহীত ছবি

ব্রুনাই থেকে এলএনজি পেতে চুক্তি হতে পারে: নসরুল হামিদ

নিজস্ব প্রতিবেদক

ব্রুনাই থেকে লিকুইড ন্যাচারাল গ্যাস (এলএনজি) পেতে ১০-১৫ বছরের চুক্তি হতে পারে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।  ব্রুনাইয়ে বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) বাংলাদেশ ও ব্রুনাইয়ের মধ্যে জ্বালানি সহযোগিতা বিষয়ক দ্বিপাক্ষিক বৈঠক শেষে প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এ কথা জানান।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ ও ব্রুনাইয়ের মধ্যে সহযোগিতার ক্ষেত্র বাড়াতে ফলপ্রসু আলোচনা হয়েছে। ২০২৩ সালের শুরু থেকে ব্রুনাই থেকে বছরে ১ থেকে ১ দশমিক ৫ মিলিয়ন মেট্রিকটন এলএনজি পাওয়ার আশা করছি।

এজন্য ১০-১৫ বছর মেয়াদী চুক্তি হতে পারে। বর্তমান প্রেক্ষাপটে ব্রুনাই থেকে গড়ে ২ লাখ ১০ হাজার মেট্রিক টন ডিজেল ডেফার্ড পেমেন্টে আমদানির বিষয়েও আলোচনা হয়েছে। এসব বিষয়ে নতুন করে চুক্তি করতে হবে। জ্বালানি সহযোগিতা ও সহযোগিতার ক্ষেত্র বাড়াতে সম্মত হয়েছে ব্রুনাই।

তিনি আরো বলেন, ব্রুনাই থেকে ২০১৪, ২০১৫ ও ২০১৬ সালে মোট ৩ লাখ ২৫ হাজার ৯৭৫ মেট্রিক টন ডিজেল আমদানি করে বাংলাদেশ। কিন্তু শতভাগ নিজস্ব রিফাইনারি থাকার শর্তে ২০১৭ সাল থেকে আর আমদানি করা সম্ভব হয়নি। বর্তমানে এই শর্ত শিথিল করা হয়েছে।  

গত ১৬ অক্টোবর বাংলাদেশ ও ব্রুনাই মধ্যে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস এবং অন্যান্য পেট্রোলিয়াম সরবরাহে সহযোগিতার জন্য সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।   ব্রুনাই প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের জ্বালানি উপমন্ত্রী ইয়ং মুলিয়া দাতো সেরি পাদুকা আয়ং হাজী মাতসাটেজা বিন সোকাইয়া নিজ দেশের পক্ষে প্রতিনিধিত্ব করেন। এ সময় তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) এবং অন্যান্য পেট্রোলিয়াম পণ্য সরবরাহে দীর্ঘমেয়াদী সহযোগিতার প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনা হয়।

অনুষ্ঠানে অন্যের মধ্যে ব্রুনাই এর প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে জ্বালানি বিষয়ক স্থায়ী সচিব ইয়ং মুলিয়া আযহার বিন হাজী ইয়ায়া, জ্বালানি বিভাগের পরিচালক মোহাম্মদ নিজাম বিন ইজমি, পেট্টোলিয়াম অথরিটির পরিচালক আড্রিয়াম ওয়াং কাই মিং, জ্বালানি বিভাগের জ্বালানি অংশীদারিত্ব ব্যবস্থাপনা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক হাজী মো. জাকি বিন হাজী হাসানুল আসসারি উপস্থিত ছিলেন।  

বাংলাদেশের প্রতিনিধি দলে ছিলেন জ্বালানি বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. মাহবুব হোসেন, বিপিসির চেয়ারম্যান এবিএম আযাদ, পেট্টোবাংলার চেয়ারম্যান নাজমুল আহসান, রূপান্তরিত প্রাকৃতিক গ্যাস কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক যাবেদ চৌধুরী ও ব্রুনাই-এ নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত নাহিদা রহমান সুমনা।