শান্তিপূর্ণভাবে আমরা ক্ষমতা হস্তান্তর করেছিলাম : শেখ হাসিনা
শান্তিপূর্ণভাবে আমরা ক্ষমতা হস্তান্তর করেছিলাম : শেখ হাসিনা

সংগৃহীত ছবি

শান্তিপূর্ণভাবে আমরা ক্ষমতা হস্তান্তর করেছিলাম : শেখ হাসিনা

নিজস্ব প্রতিবেদক

আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন,  ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি ভোটারবিহীন নির্বাচন করেছিলো খালেদা জিয়া। ফলে ৩০ মার্চ খালেদা জিয়া বাধ্য হয়ে পদত্যাগ করেছিল। ভোট চোরের অপরাধে তাদেরকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করেছিল জনগণ। এরপর নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ।

আবার ২০০১ সালে আমরা শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরও করি। বাংলাদেশের ইতিহাসে একবারই ক্ষমতা শান্তিপূর্ণভাবে হস্তান্তর করা হয় সেটাই আমরা করেছিলাম।  

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা এখন তৃতীয়বারের মতো সরকারে। এই ১৪ বছরে বাংলাদেশ অনেক দূর এগিয়েছে।

আমরা চাই গণতান্ত্রিক ধারাবাহিকতা। বাংলাদেশ এখন উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছে।  

শুক্রবার (২৫ নভেম্বর) বিকেলে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) ৫ম জাতীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন,  যার যেখানে যতটুকু জমি আছে তার এক ইঞ্চি জমিও ফেলে রাখবেন না। যে যা পারেন উৎপাদন করুন। নিজেরটা নিজে উৎপাদন করুন। চিকিৎসকদের প্রতিও আহ্বান জানাই, আপনাদেরও জমি জায়গা হয়তো কিছু আছে। সেগুলোতে যাতে ফসল হয় তরি-তরকারি হয় তার ব্যবস্থা নেন। আমরা নিজেদের চাহিদা মিটিয়ে অনেক দেশকে সাহায্য করতে পারি। আমরা একসাথে একশটি অর্থনৈতিক অঞ্চল করেছি। সেখানে খাদ্যপ্রক্রিয়াজাত শিল্প করার ব্যাপারে গুরুত্ব দিচ্ছি। জাতির পিতা বলে গেছেন, বাংলাদেশের মানুষকে কেউ দাবায়া রাখতে পারবে না।  

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের প্রথম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় আমরা করে দিয়েছিলাম। এখন প্রতিটি বিভাগে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় করে দিচ্ছি।  

কিছু লোক দেশের চিকিৎসা ব্যবস্থায় আস্থা রাখতে পারে না উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের কিছু ধনী লোক সর্দি-কাশি হলেই বিদেশে চলে যায়। করোনার সময় তারা বিদেশে যেতে না পেরে বাধ্য হয়েই দেশে চিকিৎসা নিয়েছে।  

স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) সভাপতি অধ্যাপক ডা. এম ইকবাল আর্সলানের সভাপতিত্বে সম্মেলনে আরো বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। এসময় আওয়ামী লীগেরসহ সংগঠনের অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।  

news24bd.tv/আলী