সার্বিয়ার জয় কেড়ে নিয়ে বিশ্বকাপে টিকে রইল ক্যামেরুন
সার্বিয়ার জয় কেড়ে নিয়ে বিশ্বকাপে টিকে রইল ক্যামেরুন

সার্বিয়ার জয় কেড়ে নিয়ে বিশ্বকাপে টিকে রইল ক্যামেরুন

অনলাইন ডেস্ক

এগিয়ে থাকার পর টানা তিন গোল হজম, এরপর আবার দুই গোল শোধ-কাতারে আল জানুব স্টেডিয়ামে রোমাঞ্চের জন্ম দিয়ে শক্তিশালী সার্বিয়াকে রুখে দিলো ক্যামেরুন। বাঁচা-মরার লড়াইয়ে ৩-৩ গোলে ড্র করে টুর্নামেন্টেও টিকে থাকল দলটি। সার্বিয়া ড্র করেছে নিশ্চিত জেতা ম্যাচ। তবে পয়েন্ট ভাগাভাগি করলেও, সার্বিয়ার সামনেও সুযোগ আছে নকআউট পর্বে ওঠার।

সার্বিয়া-ক্যামেরুন লড়াই বলেই ‘জি’ গ্রুপের এই ম্যাচ নিয়ে ছিল না তেমন আলোচনা। তবে আল জানুব স্টেডিয়ামে চোখ রাখা দর্শকরা এ বিশ্বকাপের অন্যতম সেরা ম্যাচটিই উপভোগ করলো আজ। জেন-চার্লস কাস্তেলেতোর গোলে ক্যামেরুন এগিয়ে যাওয়ার পর সার্বিয়া প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে করে দুটি গোল। স্ট্রাহিঞ্জা পাভলোভিচ এবং  সার্জেজ মিলিনকোভিচ-সাভিচের গোলে লিড নিয়েই বিরতিতে যায় সার্বিয়া।

বিরতি থেকে ফেরার পর গোল করেন ব্যবধান আরও বাড়ান আলেকসান্দর মিত্রোভিচ। তখন মনে হচ্ছিল বড় ব্যবধানেই হারতে চলেছে ক্যামেরুন। কিন্তু না। মাত্র তিন মিনিটের মধ্যে ম্যাচের মোড় পাল্টে দেন ভিনসেন্ট আবু বকর এবং এরিক মাক্সিম চুপো-মোটিং। তাদের গোলে ফের ম্যাচে ফেরে ক্যামেরুন। শেষ পর্যন্ত ওই গোল দুটিই আফ্রিকার দেশটিকে টিকিয়ে রাখে বিশ্বকাপে।

ব্রাজিলের কাছে হেরে বিশ্বকাপ শুরু করা সার্বিয়া প্রথমার্ধের ৪০ মিনিট পর্যন্ত বল দখলের লড়াইয়ে বেশ এগিয়ে থাকলেও ক্যামেরুনের গোলমুখে কোনো শটই রাখতে পারেনি। এ সময়ে ক্যামেরুন প্রতিপক্ষের গোলমুখে রাখে দুটি শট। এর মধ্যে একটি থেকে পেয়ে যায় গোল। ২৯তম মিনিটে তোলোর কর্নার থেকে আসা বল এক ক্যামেরুনিয়ান ফুটবলারের মাথায় লেগে চলে আসে পোস্টের সামনে ফাঁকায় দাঁড়িয়ে থাকা কাস্তেলেতোর পায়ে। খুব সহজেই বল জালে পাঠান তিনি। আন্তর্জাতিক ফুটবলে কাস্তেলেতোর এটাই প্রথম গোল।

সার্বিয়া বিরতিতে যাওয়ার আগে দুটি গোলই পায় যোগ করা সময়ে। দুটি গোলই বানিয়ে দিয়েছেন সার্বিয়ান তারকা দুসান তাদিচ। যোগ করা সময়ের প্রথম মিনিটে তার ফ্রি কিক থেকে দারুণ এক হেডে স্কোরলাইনে সমতা টানেন স্ট্রাহিঞ্জা পাভলোভিচ। সেই গোলের রেশ না কাটতেই ডি বক্সের বাইরে থেকে আবারও সার্বিয়ার গোল। এবার তাদিচের পাস থেকে বাঁ পায়ের শটে লক্ষ্যভেদ করেন সার্জেজ মিলিনকোভিচ-সাভিচ।

বিরতি থেকে ফিরে গোলখাতায় নাম তোলেন পুরো ম্যাচে একাধিক গোলের সুযোগ নষ্ট করা আলেকসান্দার মিত্রোভিচ । দারুণ একটি দলগত আক্রমণ থেকে আন্দ্রিজা জিভকোভিচের পাস থেকে বল জালে জড়ান মিত্রোভিচ। সেই গোলের পর সার্বিয়া নিজেদের একটু গুটিয়ে নেয়। সুযোগটা কাজে লাগায় ক্যামেরুন। ৬৩তম কাস্তেলেতোর পাস থেকে চিপ শটে সার্বিয়ান গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন আবু বকর। দুই মিনিট পর চুপো মোটিং ক্যামেরুনকে ফেরান ম্যাচে। এবার বলের যোগানদাতা সেই আবু বকর।

হুট করে দুই গোল হজম করা সার্বিয়া জয়ের খোঁজে বাড়িয়েছিল আক্রমণের ধাঁর। তবে ফাইনাল থার্ডে দলটির ফরোয়ার্ডদের একের পর এক ভুলে সার্বিয়ার আর এগিয়ে যাওয়া হয়নি।

news24bd.tv/সাব্বির