বিপদের মুহূর্তে দলের ত্রাতা সেই মিরাজ
বিপদের মুহূর্তে দলের ত্রাতা সেই মিরাজ

বিপদের মুহূর্তে দলের ত্রাতা সেই মিরাজ

অনলাইন ডেস্ক

গত ফেব্রুয়ারির কথা। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আফগানিস্তানের দেওয়া ২১৪ রানের লক্ষ্য তাড়ায় নেমে ৪৫ রানেই ৬ উইকেট হারিয়ে ফেলে বাংলাদেশ। উপর সারির ব্যাটারদের নিদারুণ ব্যর্থতার দিনে ঘরের মাঠে লজ্জার এক হারের অপেক্ষাতেই ছিল বাংলাদেশ। এরপর অবিশ্বাস্য এক জুটি গড়ে টাইগারদের সেই লজ্জার হাত থেকে বাঁচান আফিফ হোসেন এবং মেহেদী হাসান মিরাজ।

সবাইকে রীতিমতো অবাক করে দিয়ে সপ্তম উইকেট জুটিতে ১৭৪ রানের জুটি গড়ে বাংলাদেশকে ৪ উইকেটের স্মরণীয় এক জয় এনে দিয়েছিলেন আফিফ-মিরাজ। আফিফ খেলেছিলেন ৯৩ রানের অপরাজিত ইনিংস। তার সঙ্গে ৮১ রানে অপরাজিত থেকে মাঠ ছেড়েছিলেন মিরাজ।

আফিফ প্রতিষ্ঠিত ব্যাটার হিসেবে তার কাজটি ঠিকঠাক করেছিলেন।

তবে মিরাজের ইনিংসটি সবাইকে অবাক করে দেয়। এমন চাপের মুহূর্তে এক বোলিং অলরাউন্ডারের এরকম নান্দনিক ব্যাটিং! সেদিন ম্যাচ সেরার পুরস্কারটা ওঠে তাই মিরাজের হাতেই।

আফগানদের বিপক্ষে বীরোচিত ইনিংস খেলার ৯ মাস পর আবারও পাদপ্রদীপের আলোয় সেই মিরাজ। এবারও বিপর্যয়ের মুহূর্তে হাল ধরে দলকে উদ্ধার করলেন। এনে দিলেন আরও একটি অবিশ্বাস্য জয়।

আজ রোববার ভারতের দেওয়া ১৮৭ রানের লক্ষ্য তাড়ায় নেমে বাংলাদেশ ১৩৬ রানে হারায় নবম উইকেট। জয় থেকে তখনও ৫১ রান দূরে স্বাগতিকরা। এমন সময় বোলার মুস্তাফিজুর রহমানকে মিরাজ গড়লেন প্রতিরোধ। কেড়ে নিলেন ভারতের নিশ্চিত জয়।

আফগানিস্তানের বিপক্ষে আটে নেমে মিরাজ ১২০ বলে খেলেছিলেন ৮১ রানের ইনিংস। আজ ভারতের বিপক্ষে ফিফটিও পেরোতে পারেননি তিনি। করেন ৩৮ রান। তবে গুরুত্ব বিবেচনায় এই ইনিংসটি ওই ইনিংসের চেয়ে খাটো করার উপায় নেই। ভারতকে ১৮৬ রানের মধ্যে বেঁধে রাখার কৃতিত্ব অনেকটাই সাকিব আল হাসানের। বল হাতে তিনি নেন ৫ উইকেট। সাকিবের এমন পারফরম্যান্সের দিনেও তাই ম্যাচসেরার পুরস্কার কিন্তু উঠেছে সেই মিরাজের হাতেই।

news24bd.tv/সাব্বির